মহালয়ার দিন মন্দিরে যাওয়ার পথে নৌকাডুবি, বাংলাদেশে মৃত অন্তত ২৪

08:02 PM Sep 25, 2022 |
Advertisement

সুকুমার সরকার, ঢাকা: মায়ের বোধনের দিনই বিপর্যয় বাংলাদেশে (Bangladesh)। মহালয়ার অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়ে নৌকাডুবি হয়ে মৃত্যু হল অন্তত ২৪ জনের। এখনও পর্যন্ত নিখোঁজ রয়েছেন ৩০ জন। রবিবার বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা থেকে প্রায় পাঁচশো কিলোমিটার দূরে নৌকাডুবির ঘটনাটি ঘটেছে। মৃতদের অধিকাংশই নারী ও শিশু বলে জানিয়েছে স্থানীয় পুলিশ। স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে উদ্ধারকাজে শামিল হয়েছে পুলিশ। মৃতদের সংখ্যা বাড়তে পারে বলেই অনুমান করা যাচ্ছে।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

জানা গিয়েছে, রবিবার বিকেল তিনটে নাগাদ নৌকাডুবির ঘটনাটি ঘটে। উপজেলা নির্বাহী আধিকারিক মহম্মদ সোলেমান আলি বলেছেন, মহালয়া (Mahalaya) উপলক্ষে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাওয়ার জন্য ৭০-৮০ জনের একটি দল নৌকায় উঠেছিল। বামনহাট ঘাট থেকে নৌকা ছেড়ে বদেশ্বরী মন্দিরে যাওয়ার কথা ছিল তাঁদের। তবে কিছুক্ষণ পরেই আচমকাই দুলতে শুরু যাত্রীবোঝাই নৌকাটি।

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

[আরও পড়ুন: ঢাকেশ্বরী মন্দিরের দুর্গাপুজোই বাংলাদেশের সবচেয়ে প্রাচীন, জানেন এর ইতিহাস?]

ততক্ষণে ঘাট ছেড়ে বেশ কিছুদূর এগিয়ে গিয়েছে যাত্রীবোঝাই নৌকা (Bangladesh Boat Accident)। বিপদের আঁচ পেয়ে ঘাটের দিকে নৌকা ফিরিয়ে আনতে চেষ্টা করেন মাঝি। কিন্তু ইঞ্জিন বিকল হয়ে যাওয়ার ফলে মাঝনদীতেই ডুবে যায় নৌকাটি। যাত্রীরা সাঁতার কেটে পাড়ে পৌঁছতে চেষ্টা করেন। কিছুজন বেঁচে ফিরতে পারলেও অধিকাংশই নদীতে তলিয়ে যান। নৌকা ডুবির সঙ্গে সঙ্গেই স্থানীয় বাসিন্দারা উদ্ধারকাজ শুরু করে দেন।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

আপ্রাণ চেষ্টা সত্বেও সকলকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি। মৃত অবস্থায় ২৪ জনের দেহ উদ্ধার করা হয়। পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে, মৃতদের মধ্যে রয়েছে ৮জন শিশু। সেই সঙ্গে দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ১২ জন মহিলা ও ৪জন পুরুষের। দুশ্চিন্তা বাড়িয়ে স্থানীয় বোদা থানার ওসি জানিয়েছেন, এখনও নিখোঁজ রয়েছেন প্রায় ৩০ জন। ফলে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেই আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তিনি। স্থানীয় জেলাশাসক মহম্মদ জহুরুল ইসলাম বলেছেন, ধারণক্ষমতার চেয়ে অনেক বেশি সংখ্যক যাত্রী উঠেছিলেন নৌকায়। তার ফলেই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

[আরও পড়ুন:‘ভয়ানক ক্ষতি করছে রোহিঙ্গা শরণার্থীরা’, রাষ্ট্রসংঘে দাঁড়িয়ে সমস্যা সমাধানের আরজি হাসিনার]

Advertisement
Next