ভারতের সেনাপ্রধানের পরেই বাংলাদেশ সফরে চিনের বিদেশমন্ত্রী, তুঙ্গে জল্পনা

03:26 PM Jul 29, 2022 |
Advertisement

সুকুমার সরকার, ঢাকা: ভারতের সেনাপ্রধানের পরেই বাংলাদেশ সফরে আসছেন চিনা বিদেশমন্ত্রি ওয়াং ই। এমনটাই খবর বিদেশমন্ত্রক সূত্রে। ঢাকার সঙ্গে সম্পর্ক আরও মজবুত করতেই এই পদক্ষেপ বেজিংয়ের বলে সূত্রের খবর। একইসঙ্গে, ভূকৌশলগত, সামরিক ও বাণিজ্যিক কারণে এই সফরের দিকে তীক্ষ্ণ নজর থাকবে ভারত-সহ একাধিক রাষ্ট্রের বলে করছেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশ্লেষকরা।

Advertisement

সূত্রের খবর, ৬ আগস্ট তিনদিনের ঢাকা সফরে আসতে চলেছেন চিনের বিদেশমন্ত্রী ওয়াং ই। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক মজবুত করার পাশাপাশি, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে বৈশ্বিক পরিস্থিতি ও ভূকৌশলকগত সম্পর্ক নিয়ে বাংলাদেশের (Bangladesh) বিদেশমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেনের সঙ্গে আলোচনা করতে পারেন ওয়াং। জানা গিয়েছে, আগস্টের ৫ ও ৬ তারিখ এই সফরের প্রস্তাব দিয়েছিল চিন। ওই সময় বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আসিয়ান আঞ্চলিক ফোরামের (এআরএফ) বৈঠকে অংশ নিতে কম্বোডিয়ায় থাকবেন। তাই সফরসূচিতে কিছুটা পরিবর্তন করেছেন চিনা বিদেশমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: বাংলাদেশে আর্থিক উন্নতির রাস্তা খুলে দিল পদ্মা সেতু, এবার মোংলা বন্দরে শুরু পণ্য রপ্তানি]

এই সফর নিয়ে ঢাকায় নিযুক্ত চিনা রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বৃহস্পতিবার বিদেশমন্ত্রকের সংশ্লিষ্ট অধিকারিকদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন বলে খবর। বলে রাখা ভাল, এর আগে ২০১৭ সালে বাংলাদেশে এসেছিলেন চিনের বিদেশমন্ত্রী। কূটনৈতিক সূত্রে খবর, দুই দেশের কৌশলগত সহযোগিতার পাশাপাশি বৈশ্বিক রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সংকট নিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে আলোচনায় আগ্রহী চিন। ওয়াং ই-র সফরের সময় দুই দেশের সম্পাদিত ২৭টি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারকের বাস্তবায়নের অগ্রগতি নিয়েই আলোচনা হবে। এ ছাড়া চিনের মধ্যস্থতায় রোহিঙ্গা প্রত্যাবসনের প্রসঙ্গটিও আসতে পারে।

Advertising
Advertising

তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে, কয়েকদিন আগেই বাংলাদেশে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন ভারতের সেনাপ্রধান জেনারেল মনোজ পাণ্ডে। সেনাপ্রধানের বাংলাদেশ সফর কূটনৈতিক দিক থেকে বেশ তাৎপর্যপূর্ণ। বাংলাদেশকে একাধিক ক্ষেত্রে সাহায্য করতে সম্প্রতি চিনের (China) তৎপরতা বেড়েছে। এমনকী ঐতিহাসিক পদ্মা সেতুও চিনের প্রযুক্তি ও লোকবল দিয়েই তৈরি হয়েছে। সম্প্রতি চিন থেকে যুদ্ধজাহাজও কিনেছে বাংলাদেশ। এই পরিস্থিতিতে সেনাপ্রধান মনোজ পাণ্ডের বাংলাদেশ সফর এবং হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ আসলে চিনকেই বার্তা দেওয়া। বুঝিয়ে দেওয়া, ভারতের বন্ধুদেশের উপর বেজিংয়ের কোনও ‘দাদাগিরি’ মেনে নেবে না নয়াদিল্লি।

[আরও পড়ুন: ঢাকার চাপ, পাক হাইকমিশনের সোশ্যাল মিডিয়া থেকে সরানো হল বাংলাদেশের বিকৃত পতাকা]

Advertisement
Next