মায়ানমার থেকে বাংলাদেশে মাদক ও অস্ত্র আনছে রোহিঙ্গারা, উদ্বেগ উসকে জানালেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

02:41 PM Jul 21, 2022 |
Advertisement

সুকুমার সরকার, ঢাকা: বাংলাদেশে ক্রমে ছড়াচ্ছে মাদকের বিষ। সাম্প্রতিক কালে বেআইনি অস্ত্রের চোরাচালানও বেড়েছে লক্ষণীয়ভাবে। আর এই সমস্ত সমাজবিরোধী কার্যকলাপের জন্য রোহিঙ্গাদের দায়ী করেছেন বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

বুধবার রাজধানী ঢাকার হোটেল রেডিসনে আয়োজিত ‘রোহিঙ্গা ও নার্কো টেরোরিজম’ শীর্ষক সেমিনার উপস্থিতি ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সেখানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “মায়ানমার থেকে চোরাচালানের মাধ্যমে মাদক ও অস্ত্র বাংলাদেশে ঢুকছে। এসবের বাহক হিসেবে কাজ করছে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী। নাফ নদী দিয়ে আগের মতো মায়ানমার থেকে মাদক পাচার কমে গিয়েছে। তবে রুট পরিবর্তন হয়ে এখন বান্দরবানের দুর্গম এলাকা নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত ব্যবহার করে রোহিঙ্গারা মাদকের চালান আনছে।” তিনি আরও জানান, মাদক চোরাচালান করতে দুর্গম ওই জায়গাতে অস্ত্রও ব্যবহার করছে চোরাকারবারিরা। সেখানে দায়িত্বরত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে ইয়াবার চালান আসছে বাংলাদেশে (Bangladesh)।

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

[আরও পড়ুন: বাংলাদেশে গিয়ে হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ ভারতের সেনাপ্রধান মনোজ পাণ্ডের, ঘুরিয়ে চিনকে বার্তা]

এদিন রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানে বন্ধুরাষ্ট্রগুলি কাছে সহযোগিতার বার্তা দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি জানান, পরিস্থিতির সমাধান না হলে মানবিক বিবেচনায় রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ায় এবার বাংলাদেশ সংকটে পড়বে। রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে নানা আঙ্গিকে বাড়তি চাপ ও ঝুঁকিতে পড়েছে বাংলাদেশ। এরমধ্যে মাদক চোরাচালান, মানবপাচার, সীমান্ত নিরাপত্তা উল্লেখযোগ্য। মানবিক বিবেচনায় রোহিঙ্গাদের ভার বহন করতে গিয়ে এই চাপ নিতে হচ্ছে। কোনও ধরনের মাদক উৎপাদন না করেও বাংলাদেশই এর ভুক্তভোগী। তাই সহসা রোহিঙ্গা সমস্যার সংকট নিরসনে বন্ধুপ্রতীম রাষ্ট্রগুলোর সহযোগিতা চান তিনি।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

এদিকে, উখিয়ায় রোহিঙ্গা (Rohingya)ক্যাম্পে ভুয়ো এনআইডি-লাইসেন্স তৈরির অভিযোগে কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ভুয়া জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি), ড্রাইভিং লাইসেন্স ও বিভিন্ন জাল নথি তৈরির সরঞ্জাম-সহ ৫ জনকে আটক করেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)। পরে পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। এনিয়ে বিদেশসচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেন, মাদক চোরাচালান, অপরাধ প্রবণতা বেড়েছে সীমান্তে। সিনথেটিক ড্রাগস আসছে সীমান্ত দিয়ে। যেখানে বাহক হিসেবে কাজ করছে রোহিঙ্গারা। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জন্য হুমকি হয়ে উঠেছে অস্ত্র চোরাচালান।

[আরও পড়ুন: পয়গম্বর বিতর্কে হিন্দু শিক্ষকের গলায় জুতোর মালা, তদন্তের নির্দেশ বাংলাদেশ হাই কোর্টের]

Advertisement
Next