রাজমিস্ত্রির সঙ্গে প্রেম, বিয়ে, সুদূর মরিশাস থেকে বাংলাদেশে ছুটে এলেন তরুণী

05:54 PM Jun 11, 2022 |
Advertisement

সুকুমার সরকার, ঢাকা: মরিশাসে কাজ করতে গিয়ে তরুণীর প্রেমে পড়েন বাংলাদেশের (Bangladesh) যুবক। সেই প্রেম যে এভাবে পরিণতি পাবে, তা ভাবতেও পারেননি তিনি। তবে বাস্তব তো কল্পনার চেয়ে আশ্চর্যজনক! তাই রূপকথার মতোই দু’জনের বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। আর বিয়ের দেড় বছর পর মরিশাস (Mauritius) থেকে শ্বশুরবাড়ি বাংলাদেশে ছুটে গেলেন তরুণী। গত ৪ জুন স্ত্রী বিবি সোহেলাকে নিয়ে যুবক মুস্তাকিন বাড়ি ফিরেছেন। পুত্রবধূকে পেয়ে খুশি যুবকের পরিবারও।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

বাংলাদেশের ফরিদপুরের বাসিন্দা মুস্তাকিন কৃষক পরিবারের সন্তান। তিনি মরিশাসে এক নির্মাণ সংস্থায় রাজমিস্ত্রির কাজ করেন। সেখানেই বিবি সোহেলার সঙ্গে পরিচয়। সোহেলা সেখানকার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক পাশ করে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত। মুস্তাকিনের সঙ্গে তাঁর পরিচয়ের পর তাঁদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এই সম্পর্কের দু’বছরের মাথায় তাঁরা বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। তারপরও কেটে গিয়েছে দেড় বছর। এ মাসের প্রথমেই নিজের স্ত্রীকে নিয়ে বাড়ি ফেরেন মুস্তাকিন।

[আরও পড়ুন: রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিরোধী জোটের রাশ মমতার হাতেই! সোনিয়া-সহ ২২ নেতানেত্রীকে দিলেন চিঠি]

গত শনিবার সকালে মরিশাস থেকে ঢাকার (Dhaka) শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসেন বিবি সোহেলা। পরে স্বামী মুস্তাকিন তাঁকে নিজের গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যান। বিদেশি বধূ আসার খবরে প্রতিবেশীরা মুস্তাকিনের বাড়িতে ভিড় জমাচ্ছেন। মরিশাসের রাজধানী পোর্ট লুইস শহরের এক মুসলিম পরিবারে জন্ম সোহেলার। কাজেই ধর্ম তাঁদের সম্পর্কে বাধা হয়ে দাঁড়ায়নি। মুস্তাকিনের বাবা খবির ফকির বলেন, সম্পর্ক ও বিয়ের ব্যাপারে ছেলে তাঁদেরকে আগেই জানিয়েছিল। পরে তাঁরা, পরিবারের সদস্যরা মিলে বিমানবন্দরে গিয়ে পুত্রবধূ সোহেলাকে গ্রহণ করেছেন। এ ব্যাপারে মুস্তাকিন ফকিরের বক্তব্য, তাঁর স্ত্রী একমাসের ছুটি নিয়ে বাংলাদেশে বেড়াতে এসেছেন।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

[আরও পড়ুন: অশান্তির মধ্যে হাওড়া পুলিশে বিরাট রদবদল, কমিশনার পদে এলেন প্রবীণ ত্রিপাঠী]

Advertisement
Next