Coronavirus Update: রাজ্যে সামান্য বাড়ল দৈনিক করোনা সংক্রমণ, বুধবার জরুরি কোভিড বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী

07:01 PM May 10, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাজ্যের দৈনিক করোনা সংক্রমণ (Coronavirus) বাড়তেই জরুরি বৈঠক ডাকলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (WB CM Mamata Banerjee)। বুধবার দুপুর সাড়ে তিনটে নাগাদ রাজ্যের স্বাস্থ্য সচিব, জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক এবং জেলাশাসকদের নিয়ে বৈঠকে বসছেন তিনি। বৈঠকে ঘূর্ণিঝড় অশনি নিয়েও আলোচনা হতে পারে বলে খবর।

Advertisement

স্বাস্থ্যদপ্তরের মঙ্গলবার সন্ধের রিপোর্ট বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনা (COVID-19) আক্রান্ত হয়েছে ৪৬ জন। সোমবার আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২১। করোনার দৈনিক পজিটিভিটি রেট গতকালের থেকে বেড়ে হয়েছে ০.৬৮ শতাংশ। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত করোনা পজিটিভ হয়েছেন ২০ লক্ষ ১৮ হাজার ৬৪৬ জন। তবে তার মধ্যে প্রায় ৯৯ শতাংশই করোনা মুক্ত হয়ে গিয়েছেন।

[আরও পড়ুন: অশনিতে বিদ্যুৎ বিভ্রাট থেকে জল জমা, এক ফোনেই হবে সমাধান, রইল হেল্পলাইন নম্বর]

চিকিৎসক মহল বলছে, কোভিডবিধি মেনে চলুন। নয়তো আগামী কয়েক মাসের মধ্যে দেশে আছড়ে পড়তে পারে করোনার চতুর্থ ঢেউ। এর মাঝে রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে বুধবার বৈঠকে বসছেন মুখ্যমন্ত্রী। জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক এবং জেলাশাসকরা উপস্থিত থাকবেন বলে খবর। করোনা মোকাবিলায় রাজ্যের হাসপাতালগুলির অবস্থা, অক্সিজেন সরবরাহ, করোনা পরীক্ষা এমনকী টিকাকরণ নিয়েও আলোচনা হতে পারে বলে সূত্রের খবর।

Advertising
Advertising

বুলেটিন বলছে, একদিনে রাজ্যে কোভিড থেকে সুস্থ হয়েছেন ৩৭ জন। এখনও পর্যন্ত বাংলার ১৯ লক্ষ ৯৭ হাজার ২৬ জন ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জয়ী। বর্তমানে সুস্থতার হার ৯৮.৯৩ শতাংশ। হোম আইসোলেশনে রয়েছেন ৩৯২ জন। হাসপাতালে ভরতি ৮ জন করোনা আক্রান্ত। এদিন ঊর্ধ্বমুখী রাজ্যের সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা। বর্তমানে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্য়া ৪১৭ জন। গত ৪ দিনে মারণ ভাইরাসে রাজ্যে কোনও প্রাণহানি ঘটেনি। তবে এখনও পর্যন্ত এ রাজ্যে মারণ ভাইরাসের বলি মোট ২১ হাজার ২০৩ জন।

[আরও পড়ুন: বড়বাজারে তদন্তে গিয়ে বিপত্তি, পুরনো বাড়ির একাংশ ভেঙে জখম ৩ পুলিশ কর্মী]

কোভিডবিধি উঠে গেলেও সংক্রমণ রুখতে নমুনা পরীক্ষা চলছে। একদিনে ৬ হাজার ৭০৩ টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এখনও পর্যন্ত মোট ২ কোটি ৫১ লক্ষ ২৯ হাজার ১৫৮টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। টেস্টিংয়ের পাশাপাশি টিকাকরণও চলছে জোরকদমে। বিশেষজ্ঞরা সংক্রমণ ঠেকাতে মাস্ক পরা, দূরত্ববিধি মেনে চলার পরামর্শই দেওয়া হচ্ছে। 

Advertisement
Next