চলতি মাসেই ৯০ লক্ষ কৃষিজীবীর ঘরে পা দিচ্ছে ‘কৃষকবন্ধু’, সরাসরি অ্যাকাউন্টে ঢুকবে টাকা

01:41 PM May 20, 2022 |
Advertisement

স্টাফ রিপোর্টার: কৃষকবন্ধু প্রকল্পে (‘Krishak Bandhu’ Scheme) নতুন করে অন্তর্ভুক্ত হচ্ছেন ১০ লক্ষেরও বেশি কৃষিজীবী। গত রবি মরশুমে ৭৭ লক্ষ ৯৫ হাজার কৃষক ও ভাগচাষি রাজ্য সরকারের এই প্রকল্পের সুবিধা পেয়েছেন। আর এখন? সুবিধাভোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮৬ লক্ষ ২২ হাজার। আরও ২ লক্ষ ৬৮ হাজার আবেদন বিবেচনাধীন। সংখ্যাটা যোগ হলে খারিফ মরশুমে সুবিধাভোগীর সংখ্যা বেড়ে হবে ৮৮ লক্ষ ৯০ হাজার। কৃষিদপ্তর সূত্রে এমনটাই জানা গিয়েছে।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

২১ মে থেকে রাজ্যে ফের দুয়ারে সরকার চালু হবে। চলবে ৩১ মে পর্যন্ত। সেক্ষেত্রে সুবিধাভোগী বা উপভোক্তার সংখ্যা ৯০ লক্ষের ঘরে চলে যাবে, এমনই ইঙ্গিত মিলেছে। কৃষিজীবীদের অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকতে শুরু করবে জুন থেকেই। বৃহস্পতিবার ‘দুয়ারে সরকার’ প্রকল্প নিয়ে মুখ্যসচিব রাজ্যের সমস্ত জেলাশাসকদের সঙ্গে বৈঠকে করেন। প্রয়োজনীয় নির্দেশও দেন। মুখ্যমন্ত্রী আগেই এই প্রকল্পে টাকা বাড়ানোর কথা ঘোষণা করেছেন। আগে এক একরের বেশি জমি থাকলে বছরে ৬ হাজার টাকা দেওয়া হত। এই টাকা বাড়িয়ে ১০ হাজার করা হয়েছে। এক একরের কম জমি থাকলেও অনুদান মিলবে ৪ হাজার টাকা।

[আরও পড়ুন: দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে নিত্য অশান্তি, রাগে প্রথম স্ত্রীকে কুপিয়ে খুন ‘গুণধর’ স্বামীর]

২০১৯ সালে এই কৃষকবন্ধু প্রকল্প চালু করে তৃণমূল সরকার। বছরে দু’বার, রবি ও খারিফ মরশুমের শুরুতে প্রকল্পের টাকা পান কৃষকরা। তবে কৃষকবন্ধু প্রকল্পের সবচেয়ে বড়ো বৈশিষ্ট্য, জমির মালিকের পাশাপাশি ভাগচাষিরাও এই প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত হয়ে সুবিধা পাচ্ছেন। এখানেই কৃষকবন্ধু এগিয়ে কেন্দ্রীয় প্রধানমন্ত্রী কৃষি সিঞ্চায়ী যোজনা (পিএমকেএসওয়াই)-এর থেকে। এই তথ্য উল্লেখ করে রাজ্যের কৃষিমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় জানালেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বরাবরই কৃষকবন্ধু। কৃষকদের সুযোগ সুবিধা বাড়ানোর জন্য তিনি সবসময় তৎপর। সেই দর্শনের কথা মাথায় রেখেই কৃষকবন্ধু প্রকল্পকে আরও বেশি কৃষকদের কাছে পৌঁছনোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

কৃষিদপ্তর সূত্রে খবর, এখনও পর্যন্ত কৃষকবন্ধু খাতে ২২১০ কোটি টাকা ব্যয় করেছে সরকার। নতুন যোগ হওয়া উপভোক্তাদের জন্য আরও প্রায় ২০০ কোটি টাকা খরচ হবে। নবান্নের অভিযোগ, গত কয়েক বছরে কেন্দ্রীয় সরকার একাধিক কৃষি প্রকল্প বন্ধ করে বিপাকে ফেলেছে বহু কৃষিজীবীকে। সেখানে কৃষকদের আর্থিক সহায়তা দিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্পূর্ণ রাজ্যের খরচে এই কৃষকবন্ধু প্রকল্প চালাচ্ছেন।

[আরও পড়ুন: হাই কোর্টের নির্দেশে চাকরি খোয়ালেন পরেশ অধিকারীর মেয়ে অঙ্কিতা, ফেরাতে হবে বেতনও]

Advertisement
Next