সরকারের তরফে আনা শীতবস্ত্র কোথায়? জেলাশাসককে ধমকে হিঙ্গলগঞ্জের সভা থামালেন মুখ্যমন্ত্রী

04:35 PM Nov 29, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হিঙ্গলগঞ্জের সভার শুরুতেই ছন্দপতন। আমজনতার জন্য সরকারের তরফে আনা শীতবস্ত্র মঞ্চে দেখতে না পেয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়লেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। জেলাশাসককে তীব্র ভর্ৎসনা করে অবিলম্বে বিডিওকে শীতবস্ত্র মঞ্চে নিয়ে আসার নির্দেশ দেন তিনি। থামিয়ে দেন বক্তৃতা। আমজনতার উদ্দেশে বললেন, “আমি বসলাম, দেখি কতক্ষণে আসে। আপনারাও বসুন।” অর্থাৎ শীতবস্ত্র না আসা পর্যন্ত মঞ্চে বসে থাকবেন মুখ্যমন্ত্রী। 

Advertisement

মঙ্গলবার সকালে হিঙ্গলগঞ্জে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বনদেবীর পুজোর পর সভাস্থলে যান তিনি। সভার শুরুতেই মুখ্যমন্ত্রী বলেন, তিনি হিঙ্গলগঞ্জের বাসিন্দাদের জন্য শীতবস্ত্র এনেছেন। এরপরই তিনি দেখেন যে, মঞ্চে শীতবস্ত্র নেই। সঙ্গে সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী প্রশ্ন তোলেন, কোথায় শীতবস্ত্র? সম্ভবত জানানো হয়, সরকারের তরফে আনা শীতের পোশাক রাখা রয়েছে বিডিও অফিসে। এরপরই জেলাশাসকের উপর বেজায় চটে যান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

[আরও পড়ুন: নূসরতকে সঙ্গে নিয়ে হিঙ্গলগঞ্জে বনবিবির মন্দিরে পুজো দিলেন মুখ্যমন্ত্রী, করলেন বৃক্ষপুজোও]

রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান প্রকাশ্যে মঞ্চে দাঁড়িয়ে প্রশাসনিক কর্তাদের ধমক দেন। বলেন, “এখানে আসব বলে কম্বল, চাদর, সোয়েটার কিনেছি। এসে দেখছি …! বিডিওকে এখনই শীতবস্ত্র নিয়ে আসতে হবে। আমি তো আগেই বলেছি নিজে সোজাসুজি সকলকে শীতে উপহার তুলে দেব। কারও মারফত দেব না।” তাহলে কেন বিডিও অফিসে রাখা হল? সেই প্রশ্ন তোলেন তিনি। বিডিওকে উদ্দেশ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আমি তোমার কাছে এটা আশা করিনি।”

Advertising
Advertising

ছবি: গোবিন্দ রায়।

এরপরই সভা থামিয়ে দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বলেন, “আমি তো ওটা দিতেই এসেছিলেন। আমি এই বসলাম, শীতের পোশাক আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করব।” বিডিও, জেলাশাসকরা দায়িত্ব পালন না করলে কড়া পদক্ষেপের হুঁশিয়ারি দিয়ে বসে পড়েন মুখ্যমন্ত্রী। তড়িঘড়ি শীতবস্ত্র আনতে রওনা দেয় একটি গাড়ি। তাড়াহুড়োর সময় তাতেও বিপত্তি। যাওয়ার পথে একটি মন্দিরের পাশের ট্যাংকে ধাক্কা দেয় গাড়ি। পরবর্তীতে অন্য গাড়িতে আনা হয় শীতবস্ত্র। কিছুক্ষণ পর ফের শুরু হয় অনুষ্ঠান। শীতের বস্ত্র আনা হলে কিছু মানুষের হাতে নিজেই তা তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে বিডিও অফিস অনেক দূরে হওয়ায় সমস্ত জিনিস আনা সম্ভব হয়নি। আগামিকাল বেলা ১২ টায় ফের বস্ত্র বিতরণ করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

 

[আরও পড়ুন: হাসপাতালের হস্টেলে ছাত্রের রহস্যমৃত্যু, চিকিৎসা না পাওয়ার অভিযোগে সহপাঠীদের বিক্ষোভ]

This browser does not support the video element.

Advertisement
Next