Advertisement

অক্সিজেন অপচয় রুখতে আরও কড়া রাজ্য, হাসপাতালগুলির জন্য জারি নয়া নির্দেশিকা

09:21 PM May 11, 2021 |
Advertisement
Advertisement

ক্ষীরোদ ভট্টাচার্য: বেহালার বিদ্যাসাগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ঘটনার প্রেক্ষিতে অক্সিজেন (Oxygen) ব্যবহার নিয়ে আরও সতর্ক হল রাজ্য স্বাস্থ্যদপ্তর (Health Department)। অক্সিজেনের যথাযথ ব্যবহার এবং কোনওভাবেই যাতে অপচয় (Oxygen Waste) না হয়, তার জন্য বিশেষ পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। সব হাসপাতালে একজন করে আধিকারিক নিয়োগ করা হবে। আবার ‘কোভিড পেশেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম’ পোর্টালে সব হাসপাতালে যতজন রোগীকে অক্সিজেন দেওয়া হচ্ছে তার পূর্ণাঙ্গ তথ্য জানতে হবে।

Advertisement

স্বাস্থ্য দপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, রোগীর অক্সিজেন স্যাচুরেশন ৯২-৯৬ শতাংশ থাকলেই স্থিতিশীল বলে ধরে নেওয়া হয়। তবে রোগীকে কখন অক্সিজেন দেওয়া বন্ধ করতে হবে তা সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক ঠিক করবেন। আবার কোন পদ্ধতিতে রোগীকে অক্সিজেন দিতে হবে তাও ঠিক করবেন চিকিৎসক। তবে এটাও ধরে নিতে হবে অতিরিক্ত অক্সিজেন দেওয়া মানে রোগী দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবেন এমনটা নয়। অর্থাৎ অপচয় না করে যাতে রোগীকে অক্সিজেন দেওয়া যায় তা একজন চিকিৎসকই ঠিক করবেন।

[আরও পড়ুন: রাজ্যে একদিনে করোনা আক্রান্ত ২০ হাজারেরও বেশি, কলকাতাকে ছাপিয়ে গেল উঃ ২৪ পরগনা]

আবার ওই হাসপাতালে কত অক্সিজেন সিলিন্ডার রয়েছে। বা রোজ কতটা অক্সিজেন ব্যবহার হচ্ছে তার হিসাব রাখবেন একজন সরকারি আধিকারিক। একজন নন মেডিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্ট সুপার পদমর্যাদার অফিসার এই তথ্য রাখবেন। তিনি নিয়মিত স্বাস্থ্য দপ্তরে অক্সিজেন সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য পাঠাবেন। এটা যেমন একটা দিক, তেমনই কোনও একজন নার্সকে টঅফিসার ইন চার্জ অফ অক্সিজেন ম্যানেজমেন্টট হিসেবে দায়িত্বে থাকবেন। হাসপাতালের সিসিইউ, এইচডিইউ বা শয্যায় থাকা রোগীকে কী ফ্লোতে অক্সিজেন দেওয়া হবে প্রোটোকল অনুযায়ী তিনিই সবটা দেখবেন। তাঁর কঠোর নজরদারিতে এই কাজ চলবে। শুধু তাই নয়, কোভিড পেশেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সমস্ত তথ্য তিনি নথিভুক্ত করবেন।

[আরও পড়ুন: ১ জুন কি আদৌ শুরু হবে মাধ্যমিক? পর্ষদের ইঙ্গিতে বাড়ছে জল্পনা]

Advertisement
Next