ঝাড়গ্রামে সরকারি কাজে ‘গাফিলতি’, অভিযোগ পেয়েই কড়া প্রশাসন

08:33 PM Feb 24, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সুনীপা চক্রবর্তী, ঝাড়গ্রাম: স্বাস্থ্যকেন্দ্রের নতুন ভবন তৈরিতে নিম্নমানের ইট ব্যবহার হচ্ছে বলে অভিযোগ। স্থানীয়দের কাছ থেকে এই অভিযোগ পাওয়ার পরই তড়িঘড়ি কাজ বন্ধ করল জেলা প্রশাসন। কাজের মানের সঙ্গে কোনও সমঝতা করা হবে না বলেই জানিয়েছে জেলা প্রশাসন।

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

লালগড় স্বাস্থ্যকেন্দ্রটিতে শয্যা বাড়ানো হচ্ছে। তৈরি হচ্ছে নতুন স্বাস্থ্যকেন্দ্রের ভবন, চিকিৎসক, নার্স, স্টাফ কোয়ার্টার। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, ঝাড়গ্রাম পিডাবলুডি(সোস্যাল সেক্টর) কাজটির দায়িত্বে রয়েছে। কিছুদিন আগে লালগড়ের স্থানীয় বাসিন্দারা নির্মাণ কাজে ব্যবহৃত ইটের গুনগত মান নিয়ে অভিযোগ করেন। এমনকী, স্থানীয় বাসিন্দারা্ নির্মাণ সামগ্রীর ছবি তুলে তা ঝাড়গ্রামের জেলাশাসক, জেলা মুখ্যস্বাস্থ্য আধিকারিকের কাছে পাঠায়। জেলাশাসকের কাছে অভিযোগ করেন তাঁরা।

[আরও পড়ুন : টানা দু’দিন বাড়ল রাজ্যের দৈনিক করোনা সংক্রমণ, চব্বিশ ঘণ্টায় কোভিডের বলি ৩]

এর পর জেলাশাসক সংশ্লিষ্ট ব্লকের বিডিওকে বিষয়টি দেখতে বলেন। বিনপুর এক ব্লকের বিডিও লালগড় স্বাস্থ্যকেন্দ্রের নির্মীয়মান ভবনগুলির পরিদর্শনে গিয়েছিলেন। প্রশাসন সূ্ত্রে জানা গিয়েছে, তিনি বিনপুর-এক ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিককে বিষয়টি জানান। জেলা স্বাস্থ্যদপ্তর থেকে পিডাবলুডি (সোস্যাল সেক্টর)কে কাজের মান সংক্রান্ত বিষয়টি নিয়ে চিঠি দিতে বলা হয়েছিল। এরপর পিডাব্লুডি(সোস্যাল সেক্টর)এর কাজের গুনগত মান মূল্যায়ন না হওয়া পর্যন্ত কাজ বন্ধ রখতে বলেন ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

এই বিষয়ে ঝাড়গ্রামের জেলা শাসক আয়েষা রানি বলেন, “কাজের মানের সাথে কোনওরকম সমঝতা করা যাবে না। লালগড় থেকে আমার কাছে অভিযোগ আসে অত্যন্ত খারাপ ইট দিয়ে কাজ করা হচ্ছে বলে। বিডিও পরিদর্শনে গিয়েছিলেন। ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক পিডাব্লুডি (সোস্যাল সেক্টরে)কে চিঠি দিয়ে বলেছেন, কাজের গুনগত মান মূল্যায়ন না হওয়া পর্যন্ত কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন।” অন্যদিকে, ঝাড়গ্রামের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক প্রকাশ মৃধা বলেন, “আমাদের সবার কথা শুনতে হবে। অভিযোগ রয়েছে নির্মাণ সামগ্রীর মান নিয়ে। পিডাব্লুডি(সোস্যাল সেক্টর)কে চিঠি দিয়ে আমাদের জানাতে হবে ব্যবহৃত সামগ্রীর মান ঠিক করেছে কিনা। ওরা জানালে কাজ শুরু হবে।” অন্যদিকে পিডাব্লুডি (সোস্যাল সেক্টর)এর এগজিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার অমিয় সামন্ত বলেন, “অভিযোগ সঠিক নয়। সামগ্রীর গুনগতমান ঠিক রয়েছে। মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক জানতে চাইলে চিঠি দিয়ে জানাব।”

[আরও পড়ুন : রেলপথে জুড়ছে উত্তরবঙ্গ-ঢাকা, ২৬ মার্চ থেকে শুরু যাত্রীবাহী ট্রেন পরিষেবা]

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
Advertisement
Next