অনুব্রত গড়ের প্রথম অনুষ্ঠানেই গরহাজির মিঠুন, অসুস্থ নাকি গোষ্ঠী কোন্দল এড়ানোর চেষ্টা?

03:20 PM Nov 27, 2022 |
Advertisement

নন্দন দত্ত, সিউড়ি: অনুব্রত গড়ের প্রথম অনুষ্ঠানেই গরহাজির ‘মহাগুরু’ মিঠুন চক্রবর্তী (Mithun Chakrabarty)। যা দেখে স্বাভাবিকভাবেই হতাশ বিজেপি কর্মীরা। দলের অন্দরেই প্রশ্ন, তারকা প্রচারক তথা বিজেপি নেতা মিঠুনের সামনে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব এড়াতেই কি দলীয় কর্মীদের সামনে তাঁকে আনা হল না? যদিও বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের দাবি, দীর্ঘ কর্মসূচি রয়েছে ‘মহাগুরু’র। তাঁর শারীরিক অসুস্থতার জন্য এই অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত মিঠুন।

Advertisement

রবিবার সকালে বোলপুরের কাছারিপট্টির বেসরকারি লজে ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে হাজির থাকার কথা ছিল মিঠুন চক্রবর্তীর। বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে বসে প্রধানমন্ত্রীর মন কি বাত শোনার কথা ছিল তাঁর। সকাল ১১টা থেকে অনুষ্ঠান শুরু হয়। দূরদূরান্ত থেকে কর্মী-সমর্থকরা জড়ো হয়েছিলেন। কিন্তু বেলা ১২টা বেজে গেলেও বেসরকারি লজে আসেননি মিঠুন। যা দেখে হতাশ বিজেপি কর্মীরা।

[আরও পড়ুন: বার অ্যাসোসিয়েশনের ফর্মে বঞ্চিত ‘একলা মা’! প্রতিকার চেয়ে আদালতের দ্বারস্থ আইনজীবী]

Advertising
Advertising

 

শনিবার রাতে আসানসোলের অনুষ্ঠান সেরে বোলপুরে আসেন মিঠুন চক্রবর্তী ও সুকান্ত মজুমদার। দলীয় কর্মীদের সঙ্গে আলাপ আলোচনায় ঠিক হয় বিজেপি কর্মীর বাড়িতে বসে দলীয় কর্মীদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর ৯৫তম ‘মন কি বাত’ একসঙ্গে শোনা হবে। সেই অনুযায়ী প্রচার করে দেওয়া হয়।  এদিন সকাল থেকে দলীয় কর্মীর বাড়িতে জড়ো হয়েছিলেন বিজেপি কর্মীরা। ‘মহাগুরু’কে দেখতে লজের বাইরে জমায়েত করেছিলেন বহু মানুষ। অনুষ্ঠান শুরু হয়ে গেলেও দেখা মেলেনি বলিউডের সুপারস্টারের। 

মহাগুরুর অনুপস্থিতি নিয়ে দলের অন্দরেই প্রশ্ন উঠছে। দলীয় কর্মীদের একাংশ বলছেন, বীরভূমে বিজেপির প্রচুর অন্তর্দ্বন্দ্ব রয়েছে। মিঠুন এলে তাঁর সামনে এই কোন্দল প্রকাশ পেয়ে যেত। তাই সযত্নে এই অনুষ্ঠান এড়িয়ে গেলেন ‘মহাগুরু’। যদিও সুকান্ত মজুমদারের দাবি, “গত ৫ দিন ধরে মিঠুন চক্রবর্তীর আমাদের সঙ্গে সফর করছেন। এদিন তাঁর অন্য একটি অনুষ্ঠান রয়েছে তাই তিনি এখানে আসতে পারেননি। তাঁর শারীরিক কিথু অসুস্থতা রয়েছে।” যদিও বিজেপির বোলপুর সাংগঠনিক জেলার সভাপতি সন্ন্যাসীচরণ মণ্ডল বলেন, রাতেই কর্মীদের জানানো হয়েছিল। অনেক আশা নিয়ে দলের কর্মীরা মিঠুনের জন্য এসেছিলেন। বহু মানুষ মিঠুনকে দেখতে এসেছিলেন। অনুব্রতর গড়ে বিজেপি কর্মীরা মিঠুনের থেকে উৎসাহ পাওয়ার আশা করেছিল। তা থেকে বঞ্চিত হল।” 

[আরও পড়ুন: চলতি সপ্তাহেই লাইন পরিদর্শনের সম্ভাবনা, নিউ গড়িয়া থেকে রুবি পর্যন্ত মেট্রো ছুটতে পারে বড়দিনের আগেই!]

 

 

Advertisement
Next