নির্যাতিতার নাম প্রকাশ! কুমারগঞ্জ ধর্ষণ ও খুনের ঘটনায় সুকান্ত মজুমদারের টুইট ঘিরে বিতর্ক

05:03 PM May 13, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কুমারগঞ্জের ধর্ষণ ও খুনের ঘটনা নিয়ে টুইট করে বিতর্কে রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদার (Sukanta Majumder)। অভিযোগ, টুইটারে নির্যাতিতার নাম প্রকাশ করে ফেলেছিলেন তিনি। যদিও বিষয়টির জন্য ক্ষমা চেয়েছেন বিজেপি সাংসদ।

Advertisement

ঘটনার সূত্রপাত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে। এদিন দক্ষিণ দিনাজপুরের কুমারগঞ্জ ব্লকের সোমজিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের বারোমাসা এলাকার জঙ্গল থেকে উদ্ধার হয় মহিলার অর্ধনগ্ন দেহ। অভিযোগ ওঠে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে তাঁকে। সঙ্গে সঙ্গে অভিযুক্তদের শাস্তির দাবি তোলে বিজেপি। শুক্রবার সকালে এ বিষয়ে একটি টুইট করেছিলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। সেখানে আক্রমণ করা হয়েছিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অভিযোগ ওঠে, সেই টুইটে নির্যাতিতার নাম প্রকাশ করেছেন বিজেপি সাংসদ। তা নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই তীব্র বিতর্ক হয়। কারণ, আইন অনুযায়ী, নির্যাতিতার নাম প্রকাশ করা যায় না।

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1630720090-3');});

[আরও পড়ুন: বারবার বলেও কাজ হয়নি, রোজ মদ খেয়ে বাড়ি ফেরে বাবা, রাগে মাথায় কোপ বসাল মেয়ে!]

তবে বিতর্ক দানা বাঁধতেই টুইটটি ডিলিট করেছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি। এ বিষয়ে তিনি বলেন, “বিষয়টি ঠিক করা হয়েছে। এটা একেবারেই অনিচ্ছাকৃত, ভুল। আমার টুইটার অ্যাকাউন্টটি যিনি হ্যান্ডেল করেন, তাকে জানানো হলে সঙ্গে সঙ্গে সংশোধন করা হয়েছে। এরকম ঘটনা কখনই কাম্য নয়।”

Advertising
Advertising

 

উল্লেখ্য, মৃত আদিবাসী মহিলা দক্ষিণ দিনাজপুরের কুমারগঞ্জ ব্লকের সোমজিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের বারোমাসা এলাকার বাসিন্দা। পরিবার সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে নিখোঁজ ছিলেন তিনি। একাধিক জায়গায় মহিলার খোঁজও করেন পরিবারের সদস্যরা। কিন্তু কোথাও হদিশ মেলেনি তাঁর। এরপরই গভীর রাতে বাড়ির পাশের জঙ্গলে অর্ধনগ্ন অবস্থায় উদ্ধার হয় ওই আদিবাসী মহিলার দেহ। জানাজানি হতেই স্থানীয়রা জড়ো হন সেখানে। খবর দেওয়া হয় পুলিশে।প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, ধর্ষণের পর প্রমাণ লোপাট করতে খুন করা হয়েছে ওই আদিবাসী মহিলাকে।

Advertisement
Next