‘বদলা’চান সাংসদ, ‘ধোলাই-পেটাই’য়ের নিদান বিধায়কের, বেফাঁস হুগলির একাধিক TMC নেতা

09:36 PM Aug 13, 2022 |
Advertisement

দিব্যেন্দু মজুমদার, হুগলি: পার্থ চট্টোপাধ্যায়-অনুব্রত মণ্ডলের গ্রেপ্তারির পর থেকেই তৃণমূলকে কোণঠাসা করার চেষ্টা চালাচ্ছে বিজেপি, সিপিএম। এমনন পরিস্থিতিতে বিরোধীদের পালটা দিলেন শ্রীরামপুরের সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় (Kalyan Banerjee) এবং চুঁচুড়ার বিধায়ক অসিত মজুমদার। শনিবার জনসভা থেকে ফুঁসে উঠলেন তাঁরা। কল্যাণের হুঁশিয়ারি, ‘দিদি অনেক বড় হৃদয় নিয়ে বলেছিলেন বদলা নয়, বদল চাই। বদলা নিলে আজ সিপিএমকে দেখতে পাওয়া যেত না।’ আর অসিত বললেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী এবং অভিষেকের নামে কুৎসা করলে ধোলাই হবে, পেটাই হবে।’ তবে দলীয় বিধায়কের মন্তব্যের সমালোচনা করেছেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

এদিন হুগলির ঘড়ির মোড়ের এক জনসভা থেকে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় তোপ দাগেন। প্রথমে সিপিএমকে নিশানা করে সাংসদ বলেন,”দিদি অনেক বড় হৃদয় নিয়ে বলেছিলেন বদলা নয়, বদল চাই। সিপিএম যেমন করেছিল তার বদলা নিলে আজ সিপিএমকে দেখতে পাওয়া যেত না।” দলনেত্রীর কাছে ক্ষমা চেয়ে নিয়ে বিজেপির (BJP) বিরুদ্ধে বদলা নেওয়ার পক্ষেই সওয়াল করেন কল্যাণ।

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

[আরও পড়ুন: ‘জেলে যেতে ভয় পাই না, কিন্তু ইডি সম্মান নিয়ে টানাটানি করে’, উদ্বিগ্ন ফিরহাদ হাকিম]

সম্প্রতি হুগলিতে এসে বিজেপির রাজ্য সভাপতি হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন, ১৫ মিনিট পুলিশকে ঘরে বসিয়ে রাখলে তাঁরা দেখে নেবেন। এ প্রসঙ্গে কল্যাণ বলেন, “হাজার কোম্পানি সিআইএসএফ নিয়ে আসুক। আমরা দেখব, কেমন খেলা খেলতে পারে।” সুকান্ত মজুমদারকে কটাক্ষ করে আরও বলেন, “আড়াই বছরের বাচ্চা ছেলে সভাপতি হয়ে ধরাকে সরা জ্ঞান করছে। হুগলি জেলায় কোন দিন, কোন জায়গায় মস্তানি করবেন- দেখব আপনারা কত মস্তানি করতে পারেন।”

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই ও ইডিকেও এক হাত নিয়ে কল্যাণ। বলেন, “সুলতান আহমেদ, তাপস পাল, সুব্রত মুখোপাধ্যায় মারা গিয়েছেন শুধু নরেন্দ্র মোদির ইডি আর সিবিআইয়ের খাঁড়া মাথার উপর ঝুলিয়ে রাখার জন্য। আপনারা (সিবিআই) প্রমাণ করতে পারবেন বাংলাদেশে গরু পাচার হয়েছে? গরুটা হলুদ ছিল নাকি সাদা ছিল ল্যাজটা কেমন ছিল? আসলে কিছুই প্রমাণ করতে পারবে না।”

[আরও পড়ুন: এবার কলকাতায় সি ফুড শো, জেনে নিন কবে কোথায় হবে মেলা]

এদিকে বিজেপিকে পালটা দিয়েছেন চুঁচুড়ার বিধায়ক অসিত মজুমদারও। তাঁর কথায়, “মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের নামে কুৎসা হলে ধোলাই হবে। অভিষেকের নামে কুৎসা হলে পেটাই হবে।” তবে এই প্রথম নয়। এর আগে বিজেপি কর্মীদের ‘অ্যাটাকে’র নিদান দিয়েছিলেন বিধায়ক। এদিন তাঁর মন্তব্যের সমালোচনা শোনা গিয়েছে দমদমের সাংসদ সৌগত রায়ের গলায়। বলেছেন, “অসিত আগেও ভুল ছিল। এখনও ভুল করছেন।”

Advertisement
Next