Advertisement

করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত বাংলাদেশের জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী কবরীর

01:13 PM Apr 17, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সুকুমার সরকার, ঢাকা: করোনায় (Corona Virus) আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল প্রখ্যাত বাংলাদেশি অভিনেত্রী সারা বেগম কবরীর (Sarah Begum Kobori)। ঋত্বিক ঘটকের ‘তিতাস একটি নদীর নাম’ (Titas Ekti Nadir Naam) ছবিতে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। বাংলাদেশের জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিলেন। আবার প্রতিবেশী দেশের সাংসদও ছিলেন ৭১ বছরের অভিনেত্রী।

Advertisement

জানা গিয়েছে, কাশি ও জ্বর হয়েছিল সারা বেগম কবরীর। করোনা (COVID-19) পরীক্ষার ফল পজিটিভ আসার দু’দিন পর অর্থাৎ ৭ এপ্রিল তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। বর্ষীয়ান অভিনেত্রীকে হাসপাতালের আইসিইউতে রেখে চিকিৎসার পরামর্শ দিয়েছিলেন ডাক্তাররা। কিন্তু সেদিন আইসিইউতে বেড পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ। সূত্রের খবর, ৮ এপ্রিল দুপুরে ঢাকার একটি হাসপাতালে কবরীর জন্য আইসিইউতে বেড পাওয়া যায়। সেখানে তাঁর শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হয়।

[আরও পড়ুন: এক ছবিতে দেব-শ্রাবন্তী, রাজনীতির ‘খেলা হবে’ স্লোগান ভুলে ‘খেলাঘর’ সাজাবেন দুই তারকা]

বৃহস্পতিবার বিকেলে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছিল। কিন্তু তাতেও শেষরক্ষা হয়নি। শুক্রবার গভীর রাতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বাংলাদেশের জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী। অভিনেত্রীর মৃত্যুর খবর জানান তাঁর ছেলে শাকের চিশতি।

আগের নাম ছিল মীনা পাল। পরে লেখক সৈয়দ শামসুল হকের পরামর্শে নাম পালটে রাখেন সারা বেগম কবরী। ছয়ের দশকে সিনেমার জগতে প্রবেশ করেন অভিনেত্রী। পরিচালক সুভাষ দত্তর ‘সুতরাং’ ছবিতে যখন অভিনয় করেছিলেন তাঁর বয়স ছিল মাত্র ১৩। তারপর একাধিক বাংলাদেশি সিনেমায় অভিনয় করেছেন। ঋত্বিক ঘটকের ‘তিতাস একটি নদীর নাম’ ছবির নায়িকা ছিলেন। ১৯৭৮ সালে মুক্তি পাওয়া ‘সারেং বৌ’ সিনেমার জন্য বাংলাদেশের জাতীয় পুরস্কার পান। ৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধেও অংশ নিয়েছিলেন। ২০০৮ সালে ভোটে জিতে বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জ ৪ কেন্দ্রের সাংসদ হয়েছিলেন। পরে রাজনীতি ছেড়ে অভিনয় জগতে ফিরেছিলেন। ছবি পরিচালনাও করেছিলেন। কিন্তু করোনার মারণ ছোবল থেকে রেহাই পেলেন না। বর্ষীয়ান অভিনেত্রীর মৃত্যুতে শোকাহত বাংলাদেশের চলচ্চিত্র মহল ও সিনে অনুরাগীরা।

[আরও পড়ুন: হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু জনপ্রিয় তামিল অভিনেতা বিবেকের]

Advertisement
Next