Advertisement

সম্পর্কের টানাপোড়েন নিয়ে ব্যস্ত সাংসদ নুসরত! ‘যশ’বিধ্বস্ত হিঙ্গলগঞ্জের পাশে সায়ন্তিকা

08:53 PM Jun 10, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিয়ে হোক বা লিভ-ইন, সম্পর্ক তো ছিল। তা চূড়ান্ত তিক্ততার পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছে। চার দেওয়ালের বাইরের মুখরোচক সংবাদ হয়ে উঠেছে নুসরত জাহান (Nusrat Jahan) ও নিখিল জৈনের (Nikhil Jain) সম্পর্ক। সম্পর্কের এই টানাপোড়েন নিয়ে যখন তারকা সাংসদ ব্যস্ত, তখন তাঁর বসিরহাট কেন্দ্রের মানুষ ঘূর্ণিঝড় যশ বা ইয়াসের ধাক্কা সামলানোর আপ্রাণ চেষ্টা করছেন। আর তাঁদের পাশে দাঁড়ালেন তৃণমূলের নব নির্বাচিত রাজ্য সম্পাদক সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায় (Sayantika Banerjee)।

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

নুসরত-নিখিলের অভিযোগ পালটা অভিযোগের পালা চলছেই। কখনও নুসরত জাহান বিবৃতি জারি করে দাবি করছেন নিখিল জৈনের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়নি শুধুমাত্র লিভ-ইন সম্পর্ক ছিল, কখনও আবার নিখিলের পালটা বিবৃতি জারি করে দাবি করছেন, বারবার বলা সত্ত্বেও নুসরত তাঁদের বিয়ে নথিভুক্ত করতে চাননি। সম্পর্কের কাজিয়া নিয়ে তারকা সাংসদ তুমুল ব্যস্ত ব্যতিব্যস্ত। এদিকে ঘূর্ণিঝড়ের ধাক্কা এখনও সামলে উঠতে পারেনি বসিরহাট কেন্দ্রের হিঙ্গলগঞ্জ (Hingalganj) এলাকা। অতিমারী আবহে এখনও অনেকের মাথা গোঁজার ঠাঁই নেই। মাস্ক, স্যানিটাইজার তো দূরে থাক দু’বেলা অন্ন জোটানোর সাধ্য পর্যন্ত অনেকের নেই।

[আরও পড়ুন: বারবার বিয়ের রেজিস্ট্রেশন এড়িয়ে গিয়েছিলেন নুসরত! নিখিলের পালটা বিবৃতিতে চাঞ্চল্য]

এমন পরিস্থিতিতে সাংসদ নুসরত জাহানের বদলে হিঙ্গলগঞ্জে দেখা গেল সায়ন্তিকাকে। নিজের টুইটার প্রোফাইলে ছবি শেয়ার করে তৃণমূলের তারকা সদস্য জানিয়েছেন, ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হিঙ্গলগঞ্জের মা-বোনেদের হাতে প্রয়োজনীয় ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ ও বিনামূল্যে চিকিৎসা প্রদান করেই গিয়েছিলেন তিনি।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

একুশের ভোটের আগে তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন সায়ন্তিকা। বাঁকুড়ার প্রার্থী হয়েছিলেন তিনি। ভোটে হেরে গেলেও করোনা কালে বাঁকুড়ার পাশে দাঁড়িয়েছিলেন অভিনেত্রী। কিছুদিন আগেই তৃণমূলের রাজ্য সম্পাদক সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়। এক সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে নায়িকা জানান, দলের পক্ষ থেকে ত্রাণ বিলি করার কাজ করেছেন তিনি। নুসরতের বিষয়টি সম্পূর্ণ তাঁর ব্যক্তিগত বলেই মত সায়ন্তিকা। এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য তিনি করতে চান না বলেই জানিয়েছেন।

[আরও পড়ুন: শিকড় ছেঁড়ার বেদনা, পরিচালক বুদ্ধদেব দাশগুপ্তর প্রয়াণে বিষণ্ণ শৈশবের গ্রাম]

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
Advertisement
Next