সংসদে বিয়ে বাতিলের কথা আগেই জানিয়েছিলেন নুসরত! তাহলে লিভ-ইনের দাবি কেন?

01:15 PM Jun 23, 2021 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নিখিলের সঙ্গে বিয়ের অ্যানালমেন্ট প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পরই নাকি লোকসভার স্পিকারকে চিঠি লিখে সেকথা জানিয়েছিলেন সাংসদ নুসরত জাহান (Nusrat Jahan)। ম্যারেজ অ্যানালমেন্টের প্রতিলিপিও জমা দিয়েছেন বলে দাবি। বিজেপি সাংসদ সংঘমিত্রা মৌর্যর (BJP MP Sanghmitra Maurya) ভুয়ো তথ্য দেওয়ার অভিযোগের পালটা জবাব দিতে গিয়ে একথাই জানিয়েছেন বসিরহাটের তারকা সাংসদ। কিন্তু তারপরই উঠছে অন্য প্রশ্ন। লোকসভায় যদি নুসরত ম্যারেজ অ্যানালমেন্টের প্রতিলিপি তারকা সাংসদ জমা দিয়ে থাকেন, তাহলে কিছুদিন আগের বিবৃতিতে নিখিলের সঙ্গে বিয়েকে অস্বীকার করেছিলেন কেন? কেনই বা নিখিলের সঙ্গে লিভ-ইন সম্পর্কে ছিলেন বলে দাবি করেছিলেন।

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

সেপ্টেম্বরে মা হতে চলেছেন নুসরত জাহান। এই খবর প্রকাশ্যে আসার পরই নিখিল জৈন (Nikhil Jain) জানিয়েছিলেন তিনি নুসরতের সন্তানের বাবা নন। বহুদিন থেকেই আলাদা থাকেন দু’জনে। সেই সময়ই নিখিল জানিয়েছিলেন, বিচ্ছেদের জন্য তিনি দেওয়ানি আদালাতে মামলা করেছেন। যেহেতু তাঁদের ম্যারেজ রেজিস্ট্রেশন হয়নি। তাই অ্যানালমেন্ট করেই আলাদা হতে হবে। আর তার জন্য নুসরতকে শুধু আদালতে গিয়ে বলতে হবে, তিনি নিখিল জৈনের সঙ্গে আর থাকতে চান না এবং ভবিষ্যতে কোনও সম্পর্কও রাখবেন না।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

[আরও পড়ুন: কসবায় করোনা ভ্যাকসিন জালিয়াতির শিকার খোদ মিমি চক্রবর্তী! কী জানালেন অভিনেত্রী?]

কিন্তু এরপরই ৯ জুন বিবৃতি প্রকাশ করে নুসরত জাহান জানান, তুরস্কে তাঁর ও নিখিলের যে ডেস্টিনেশন ওয়েডিং হয়েছিল তা ভারতে বৈধ নয়। তাই নিখিলের সঙ্গে তাঁর বিয়েই হয়নি। তাঁরা লিভ-ইন সম্পর্কে ছিলেন মাত্র। তাই বিচ্ছেদের প্রশ্নই আসে না। এর ঘটনার উল্লেখ করেই ১৯ জুন লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লাকে চিঠি লিখেছিলেন উত্তরপ্রদেশের বদায়ুনের সাংসদ সংঘমিত্রা মৌর্য। নিজের চিঠিতে তৃণমূল সাংসদ নুসরত জাহানের কড়া শাস্তির দাবি জানিয়ে সংঘমিত্রা উল্লেখ করেন, কীভাবে ২০১৯ সালের ২৫ জুন সংসদে শাড়ি ও সিঁদুর পরে হিন্দু বাড়ির বউয়ের বেশে সংসদে গিয়েছিলেন নুসরত। তারপর শপথ নেওয়ার সময়ও নিজেকে নুসরত জাহান রুহি জৈন হিসেবে পরিচয় দিয়েছিলেন। চিঠিতে নুসরতের লোকসভার প্রোফাইলের প্রতিলিপিও জুড়ে দেন বদায়ুনের বিজেপি সাংসদ। যেখানে নুসরতের স্বামী হিসেবে নিখিল জৈনের নাম লেখা। এ বিষয়ে বিস্তারিত তদন্ত করুক সংসদের (Parliament of India) এথিকস কমিটি। এই দাবি জানিয়েছিলেন বিজেপি সাংসদ। তাঁর সেই অভিযোগের জবাব দিতে গিয়েই নতুন বিতর্কে জড়ালেন বসিরহাটের তারকা সাংসদ।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: ইংরেজদের দেওয়া ‘ইন্ডিয়া’ নাম মুছে দেশ হোক ‘ভারত’, নয়া দাবি কঙ্গনার]

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
Advertisement
Next