‘এভাবেই বিভাজন তৈরি করেছিল ব্রিটিশরা’, হিন্দি বিতর্কে মুখ খুললেন অক্ষয় কুমার

09:11 PM May 22, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কিছুদিন আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘হিন্দি বিতর্কে’ জড়িয়েছিলেন অজয় দেবগন (Ajay Devgn) ও কানাড়া অভিনেতা কিচ্চা সুদীপ (Kiccha Sudeep)। ওই লড়াই ছিল দক্ষিণের ছবি ভার্সেস বলিউডের ছবিরও। প্রশ্ন উঠেছিল হিন্দি (Hindi) ভারতের রাষ্ট্র ভাষা কি না। এবার এই বিষয়ে কতকটা আক্ষেপের সুরে মুখ খুললেন গেরুয়া শিবিরের ঘনিষ্ট বলে পরিচিত বলি তারকা অক্ষয় কুমার (Akshay Kumar)। অক্ষয় জানালেন, দক্ষিণের ইন্ডাস্ট্রি, উত্তরের ইন্ডাস্ট্রি- এমন ভাগাভাগিতে বিশ্বাস করেন না। বলেন, এভাবেই ব্রিটিশরা ভারতকে ভাগ করেছিল।

Advertisement

সম্প্রতি একের পর এক দক্ষিণী ছবি মন জিতছে দর্শকের। তার মধ্যে রয়েছে ‘KGF চ্যাপ্টার ২’, ‘RRR’ এবং ‘পুষ্প দ্য রাইস’। এর পরেই একটি অনুষ্ঠানে সুদীপ বলেন, “সবাই বলছে কন্নড় ইন্ডাস্ট্রিতে একটি সর্বভারতীয় ছবি তৈরি হয়েছে। আমি বলতে চাই, হিন্দি আর রাষ্ট্রভাষা নেই।” সুদীপের এই মন্তব্যের পরেই হিন্দি ভাষার পক্ষে ব্যটন ধরেন অজয় দেবগন। রীতোমতো উষ্মা প্রকাশ করে টুইট করেন তিনি। বলেন, “ভাই, যদি হিন্দি আমাদের রাষ্ট্র ভাষা না-ই হবে, তবে তুমি কেন তোমার মাতৃভাষায় তৈরি ছবিগুলিকে হিন্দিতে ডাব করো? হিন্দি আমাদের মাতৃভাষা। এবং রাষ্ট্রীয় ভাষা। চিরকাল তাই থাকবে। জনগণমন।”

[আরও পড়ুন: রক্ষকই ভক্ষক! ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে ব্যাংক ডাকাতি খোদ পুলিশের সাসপেন্ডেড অফিসারের]

সাম্প্রতিক সাক্ষাৎকারে অক্ষয় কুমার বললেন, “এই ভাগাভাগিতে বিশ্বাস করি না আমি। যখন কেউ বলে দক্ষিণের ইন্ডাস্ট্রি, উত্তরের ইন্ডাস্ট্রি, তখন আমার খুব খারাপ লাগে। আমি মনে করি, আমরা একটাই ইন্ডাস্ট্রি।” অক্ষয়ের মন্তব্য, “এটা বোঝা খুব জরুরি যে এভাবেই ব্রিটিশরা এসে আমাদের ভাগ করে দিয়ে গিয়েছিল। এই কৌশলেই আমাদের শাসন করেছিল। আমরা এখনও বিষয়টা বুঝে উঠতে পারছি না। যেদিন বুঝব আমরা একটাই ইন্ডাস্ট্রি, আমার ধারণা তখন আরও ভাল কাজ হবে।” অক্ষয় আরও বলেন, “প্যান ইন্ডিয়া সিনেমা ব্যাপারটা আমার মাথায় ঢোকে না। যেটা চাই- সব ছবি সাফল্য পাক।”

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: ‘জ্ঞানবাপী মসজিদের ‘শিবলিঙ্গ’ পুজো করতে চাই’, আদালতে যাচ্ছেন কাশী বিশ্বনাথ মন্দিরের মোহন্ত]

উল্লেখ্য, গেরুয়া শিবির ক্ষমতায় আসার পর থেকেই হিন্দিকে দেশের প্রধান ভাষা হিসেবে তুলে ধরার চেষ্টা চলছে। সম্প্রতি নতুন করে এই বিষয়ে সওয়াল করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এরপরেই বিরোধিতার ঢেউ ওঠে দক্ষিণের রাজ্যগুলিতে। আসরে নামেন কিংবদন্তি সঙ্গীত পরিচালক এআর রহমানও-সহ বহু দক্ষিণী গুণিজন।অন্যদিকে দক্ষিণের ইন্ডাস্ট্রি ও বলি ইন্ডাস্ট্রি দ্বন্দ্ব দানা বাঁধে।সেই দ্বন্দ্বেই জড়ান কিচ্চা সুদীপ ও অজয় দেবগন। অক্ষয় গেরুয়া শিবিরে ঘনিষ্ট হয়েও এক্ষেত্রে বিভাজন দূর করতে চাইলেন। ঘুরিয়ে গেরুয়া শিবিরের বিপরীতেই মত দিলেন তিনি। এরপর হিন্দিবাদীরা কী বলেন সেটাই এখন দেখার।  

Advertisement
Next