সোনালি ফোগাট মৃত্যু মামলায় একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য, সিবিআই তদন্ত চাইল হরিয়ানা সরকার

11:11 AM Aug 28, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিজেপি নেত্রী সোনালি ফোগাট (Sonali Phogat) মৃত্যু মামলায় রহস্য যেন আরও ঘনীভূত হচ্ছে। তদন্তে গতি বাড়াচ্ছে গোয়া পুলিশও। তবে তাতে সন্তুষ্ট নয় হরিয়ানা সরকার। তারা চাইছে, এই মামলার তদন্ত করুক কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই। এই মর্মে গোয়া সরকারকে একটি চিঠি লেখা হচ্ছে হরিয়ানা সরকারের তরফে।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

শনিবারই সোনালি ফোগাটের পরিবার হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খাট্টারের (ML Khattar) সঙ্গে দেখা করেছেন। সূত্রের খবর, অভিনেত্রীর পরিবারই এই মামলায় সিবিআই তদন্ত চাইছেন। তাঁরাই হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রীর কাছে সিবিআই তদন্তের আরজি জানিয়ে এসেছেন। সোনালি ফোগাটের ১৫ বছরের মেয়ে নিজেই সংবাদমাধ্যমের কাছে সিবিআই তদন্তের দাবির কথা জানিয়েছে। তারপরই উদ্যোগ নিয়ে গোয়া সরকারকে চিঠি পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী খাট্টার।

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

[আরও পড়ুন: ৯ সেকেন্ডে মাটিতে মিশবে নয়ডার টুইন টাওয়ার, ধ্বংসাবশেষ সরাতে সময় লাগবে তিন মাস]

গত ২৩ আগস্ট গোয়ার রিসর্টে প্রয়াত হন ‘বিগ বস’ খ্যাত অভিনেত্রী তথা বিজেপি নেত্রী সোনালি ফোগাট (Sonali Phogat)। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী, ওই অভিনেত্রীর দেহে একাধিক আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে। প্রথমে মনে করা হয়েছিল, লোভ এবং শত্রুতার জন্য সোনালিকে খুন করা হয়েছে। কিন্তু ধীরে ধীরে এই মামলায় রহস্য ঘনীভূত হচ্ছে। মনে করা হচ্ছে, সোনালিকে মাদক বা নিষিদ্ধ কোনও স্লো-পয়জন খাইয়ে খুন করা হতে পারে। গোয়ার রিসর্টের একটি সিসিটিভি ফুটেজও প্রকাশ্যে এসেছে।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

[আরও পড়ুন: রাহুলকে তোপ দেগে দল ছাড়লেন আরও এক প্রাক্তন সাংসদ, রবিবার ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে কংগ্রেস]

এই রিপোর্টের উপর ভিত্তি করে বৃহস্পতিবার গোয়া পুলিশ সোনালি ফোগাটের দুই সহকর্মীর বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ দায়ের করে। সুধীর সাঙ্গওয়ান ও সুখবিন্দর সিং এই দু’জনই সোনালির সঙ্গে গোয়া সফরে উপস্থিত ছিলেন। এদের ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এরা ছাড়াও গতকাল গ্রেপ্তার হয়েছেন কার্লিস রেস্তরাঁর মালিক এডউইন নানস এবং এক মাদক মাফিয়া। তাদের গতকাল আদালতে তোলা হলে ১০ দিনের পুলিশ হেফাজতে পাঠানো হয়েছে। এদিকে আবার আজ আরেক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়া পুলিশ (Goa Police)।

Advertisement
Next