গাড়ি দুর্ঘটনার পর থানার সামনে হেনস্তা! পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ নবনীতা ও জিতু কমলের

07:55 PM Dec 08, 2022 |
Advertisement

অর্নব দাস: রশিদ খানের পর এবার পুলিশের বিরুদ্ধে হেনস্তার অভিযোগ আনলেন অভিনেতা জিতু কমল ও তাঁর স্ত্রী অভিনেত্রী নবনীতা দাস। বৃহস্পতিবার নিমতা থানার পুলিশ প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন জিতু ও নবনীতা। নিমতায় তাঁদের গাড়িতে ধাক্কা মারে অন্য একটি গাড়ি। কিন্তু পুলিশ অভিযোগ নিতে রাজি হয়নি বলে অভিযোগ। এফআইআর দায়ের করতেও অস্বীকার করা হয় বলে অভিযোগ তুলেছেন তারকা দম্পতি। নিমতা থানার সামনে থেকে ফেসবুক লাইভে গোটা ঘটনা নিয়ে সরব হন নবনীতা ও জিতু। 

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

ঠিক কী ঘটে নবনীতা ও জিতুর সঙ্গে?

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

জিতু কামাল (Jeetu Kamal) ও তার স্ত্রী নবনীতা (Nabanita Das) এদিন দুপুরে তাঁদের নিজস্ব গাড়িতে ব্যক্তিগত কাজে যাচ্ছিলেন। তাঁদের অভিযোগ নিমতা মাঝেরহাটি মোড়ে তাদের গাড়িকে একটি পন্যবাহী গাড়ি ধাক্কা মারে। সে সময় তাদের গাড়ি চালক সেই গাড়িটিকে আটকানোর চেষ্টা করলে, তাকে চাপা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। এই ঘটনার পর জিতু ও নবনীতা থানায় এসে অভিযোগ জানাতে গেলে বেশ কিছুক্ষণ ধরে থানায় তাদের অপেক্ষা করতে হয় এবং সেই সময়ই পুলিশি হেনস্তার মুখে পড়েন বলে অভিযোগ।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

[আরও পড়ুন: ফের আসছে ‘সিংহম’, রোহিত শেট্টির ছবিতে দাবাং পুলিশের ভূমিকায় এবার দীপিকা!]

জিতু ও নবনীতা যখন থানার ভিতর, ঠিক সেই সময় তাদের গাড়ি চালককে ওই পণ্যবাহী গাড়ি চালকও তার সহযোগীরা নিমতা থানার বাইরে হেনস্তা করতে থাকে। তাঁরা তা দেখতে পেয়ে ছুটে যান এবং তাঁদের চালককে থানায় নিয়ে আসলে থানার গেটের মুখে অভিনেত্রীকে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়। নবনীতা ও জিতুর অভিযোগ এই গোটা ঘটনায় পুলিশ একেবারেই চুপ থাকে। তাঁদের সামনেই নানারকম হুমকি দিতে থাকে পণ্যবাহী গাড়ির চালক ও তার সহযোগীরা।

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটালের পক্ষ থেকে এই বিষয় নিয়ে নবনীতাকে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ‘গোটা ঘটনায় আমরা হতবাক। যেটা ঘটছে সেটা পুলিশের সামনেই। পুলিশের সামনেই আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে! গাড়ি আটকে রাখার হুমকিও দেওয়া হচ্ছিল। গোটা কাণ্ডটা ঘটছিল থানা এলাকাতেই। যাঁরা হুমকি দিচ্ছিল তাঁদের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপই নিল না, শুধু তাঁদের উদ্দেশে বলল, তোরা চলে যা এখান থেকে! থানার সামনে এসব ঘটছে, কেউ কিচ্ছু বলছে না, এটা কী ধরণের আইন? পুলিশের সামনে এরকম প্রকাশ্যে হুমকি দিচ্ছে! তাই বাধ্য হয়ে ফেসবুকে লাইভ শুরু করি। রক্তপরীক্ষা করতে গিয়েছিলাম। সকাল থেকে কিছু খাওয়া হয়নি। এই অবস্থায় থানায় এসেছি। মাথা ঘুরোচ্ছে। সকাল থেকে এসব চলছে। পুলিশের সামনে অভিযুক্ত গাড়ির চালক ও সহকারীরা খুনের হুমকি দিলেও কোনও পদক্ষেপ নেয়নি পুলিশ।’ পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে পুরো বিষয় খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: অপেক্ষার অবসান, এবার এপার বাংলার সিনেমা হলে মুক্তি পাবে বাংলাদেশের ‘হাওয়া’ ]

Advertisement
Next