পরতে পরতে রহস্য আর অনবদ্য অভিনয়েই বাজিমাত, পড়ুন ‘ফরেনসিক’ছবির রিভিউ

04:21 PM Jun 24, 2022 |
Advertisement

সুলয়া সিংহ: ছোট শহরে একের পর এক খুন। সিরিয়াল কিলার কে? এটাই যখন ছবির চিত্রনাট্যের মূল প্রশ্ন হয়ে দাঁড়ায়, তখন দর্শকের মগজ নিয়ে খেলতে থাকেন পরিচালক। আর সেই জায়গায় মাত দিতে পারলেই মেলে প্রশংসা। ‘ফরেনসিক’ (Forensic) ছবিতে পরিচালক বিশাল ফারিয়া সেই লক্ষ্যে অনেকটাই সফল। আর তাঁকে সফল করতে নিজেদের সেরাটা উজাড় করে দিয়েছেন বিক্রান্ত মাসে এবং রাধিকা আপ্তে (Radhika Apte)। ফলে ২ ঘণ্টা ৮ মিনিটের থ্রিলার দেখতে মন্দ লাগে না।

Advertisement

তবে এখানে বলে রাখা ভাল, ২০২০ সালে একই নামের মালয়ালম ছবি মুক্তি পেয়েছিল। সেই ছবি যাঁরা দেখে ফেলেছেন, তাঁরা বিক্রান্ত-রাধিকার ছবি থেকে নতুন কিছুই পাবেন না। শুধু তিরুঅনন্তপুরমে যে ঘটনা ঘটেছিল, এখানে তা চলে এসেছে মুসৌরিতে। তাছাড়া সাসপেন্স থ্রিলারের রহস্য উন্মোচন হয়ে গেলে তা বারবার দেখতে বিশেষ ভালও লাগে না। তবে জি ফাইভ (Zee5) ওটিটি প্ল্যাটফর্মে সদ্যমুক্তি পাওয়া ‘ফরেনসিক’ নিয়ে যদি কথা বলা হয়, তবে বলতে হয়, ছবির লোকেশন ও অভিনয়ের পাশাপাশি ‘কী হয়, কী হয়’ ভাবটা গোটা ছবিজুড়ে রাখতে পেরেছেন পরিচালক। এই গল্পে ব্যক্তিগত সম্পর্ক ও পারিবারিক জটিলতাকে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে অতি সূক্ষ্মভাবে জড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: SSC Scam: অঙ্কিতার চাকরি পাবেন ববিতাই, দিতে হবে ৪৩ মাসের বেতনও, নির্দেশ হাই কোর্টের]

উত্তরাখণ্ডের মুসৌরির অভিভাবকরা বাচ্চাদের জন্মদিন এলেই ভয়ে ত্রস্ত হয়ে ওঠে। কারণ জন্মদিনেই খুন হচ্ছে বাচ্চারা। এই ঘটনারই তদন্তের দায়িত্ব পায় রাধিকা আপ্তে ওরফে মেঘা শর্মা। আর ফরেনসিক বিশেষজ্ঞ হিসেবে তার দলে যোগ দেয় জনি খান্না ওরফে বিক্রান্ত মাসে (Vikrant Massey)। তদন্ত যত এগোয়, ততই বাড়তে থাকে জটিলতা। তবে বিজ্ঞানের অগ্রগতির সৌজন্যে জটিল থেকে জটিলতর কেসও সমাধান করে দেওয়া সম্ভব, সেটাই প্রমাণ করেছে ‘ফরেনসিক’। তবে মানুষের মনস্তত্বও যে কতখানি জটিল হতে পারে, সেই দিকটাও ফুটে উঠেছে এই ছবিতে।

খুব বেছে বেছে ছবি করেন রাধিকা আপ্তে। তাঁর অভিনয় নিয়েও নতুন করে বলার কিছু নেই। তাই তাঁর ছবি থেকে এমনই প্রত্যাশা থাকে। এ ছবিতেও পুলিশ অফিসারের ভূমিকায় কোনও খুঁত রাখেননি তিনি। অভিনয় নিয়ে কোনওপ্রকার বাড়াবাড়ি করেননি বিক্রান্তও। এছাড়াও প্রাচী দেশাই, রোহিত রায় নিজেদের জায়গায় ঠিকঠাক। ছবিতে ব্যাকগ্রাউন্ড গান থাকলেও তা ছবির গতিকে শ্লথ করেনি। তবে ছবির চরিত্রগুলির এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় পৌঁছে যাওয়ার টাইমিং, ভিলেনের হঠাৎ করে হিরো হয়ে যাওয়ার বিষয়গুলি একটু চোখে লাগে। তবে থ্রিলার ছবি পছন্দ হলে ‘ফরেনসিক’ দেখার জন্য দু’ ঘণ্টা দিতেই পারেন।

[আরও পড়ুন: প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে বোরখা পরে গার্লস হস্টেলে যুবক! কপালে জুটল বেধড়ক মার]

This browser does not support the video element.

Advertisement
Next