৪০ ঘণ্টা জেরার পরও সন্তুষ্ট নয় ইডি! মঙ্গলবার ফের তলব রাহুল গান্ধীকে

09:47 PM Jun 20, 2022 |
Advertisement

সোমনাথ রায়, নয়াদিল্লি: টানা ৪০ ঘণ্টা ইডির জেরার মুখে কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধী (Rahul Gandhi)। ফের মঙ্গলবার তাঁকে তলব করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। সোমবার সন্ধেয় সূত্র মারফত এমনটাই খবর। সোমবারও ১০ ঘণ্টার বেশি সময় রাহুলকে জেরা করেছেন ইডি (Enforcement Directorate) আধিকারিকরা।

Advertisement

ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলায় (National Herald Case) গত সপ্তাহে পর পর তিনদিন ইডি অফিসে হাজিরা দিয়েছিলেন রাহুল। প্রায় ৩০ ঘণ্টা জেরা করা হয় তাঁকে। মা সোনিয়া গান্ধীর অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে মাঝে শুক্রবার জেরা থেকে বিরতি নিয়েছিলেন। সোমবার ফের ইডির দপ্তরে হাজিরা দেন তিনি। এদিনও প্রায় ১০ ঘণ্টার বেশি সময় জেরা করা হয় তাঁকে। আবার মঙ্গলবার তলব করা হয়েছে ওয়ানড়ের সাংসদকে।

[আরও পড়ুন: প্রাথমিক নিয়োগ দুর্নীতি: অপসারিত প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য]

ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলায় কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী (Sonia Gandhi) এবং রাহুলকে তলব করেছিল ইডি। প্রথমবার বিদেশে থাকার জন্য হাজিরা দিতে পারেননি তিনি। ইডির সমন পাঠানোর পরই করোনা আক্রান্ত হন কংগ্রেস সভানেত্রী। অসুস্থতার জেরে হাসপাতালে ভরতি হতে হয় তাঁকে। ফলে তিনি ইডির সমনে সাড়া দিতে পারেননি। আজই হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন। তবে থাকতে হবে বিশ্রামে। ২৩ জুন তাঁকে হাজিরা দিতে বলেছে ইডি।

Advertising
Advertising

অভিযোগ, রাহুল গান্ধী এবং সোনিয়া গান্ধীর মালিকানাধীন ‘ইয়ং ইন্ডিয়ান প্রাইভেট লিমিটেড’ নামের একটি সংস্থা ২০১১ সালে ন্যাশনাল হেরাল্ড, কোয়াম-ই-আওয়াজ, এবং নবজীবন, এই তিনটি সংবাদপত্র ‘অ্যাসোসিয়েট জার্নালস লিমিটেডে’র কাছ থেকে অধিগ্রহণ করে। রাহুল গান্ধী এবং সোনিয়া গান্ধী একাই ওই সংস্থার ৭৬ শতাংশ শেয়ারের মালিক। বাকি দুই শেয়ার হোল্ডার হলেন প্রয়াত কংগ্রেস নেতা অস্কার ফার্নান্ডেজ এবং মতিলাল ভোরা (Motilal Bhora)। সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর অভিযোগ ছিল, ওই অধিগ্রহণ নিয়ম মেনে হয়নি। ঘুরপথে মাত্র ৫০ লক্ষ টাকার বিনিময়ে ‘অ্যাসোসিয়েট জার্নালস লিমিটেডের’ কোটি কোটি টাকার সম্পত্তির মালিক হয়ে গিয়েছে কংগ্রেসের ফার্স্ট ফ্যামিলি পরিচালিত ‘ইয়ং ইন্ডিয়ান প্রাইভেট লিমিটেড’। সেই মামলাতেই রাহুলকে জেরা করছে ইডি।

[আরও পড়ুন: একতরফা সিদ্ধান্তে দলীয় পতাকা থেকে উধাও কাস্তে-হাতুড়ি! ভাঙনের মুখে ফরওয়ার্ড ব্লক]

Advertisement
Next