Advertisement

বিনামূল্যে ভ্যাকসিনের দাবিতে এবার সুপ্রিম কোর্টে পশ্চিমবঙ্গ সরকার

07:47 PM May 07, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অভিন্ন ভ্যাকসিন নীতি ও বিনামূল্যে করোনা টিকার দাবিতে এবার সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ পশ্চিমবঙ্গ সরকার। দেশে সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ের আবহে রাজ্যবাসীর জন্য দ্রুত টিকা চেয়ে কেন্দ্র সরকারের উপর আরও চাপ বাড়াল নবান্ন।

Advertisement

[আরও পড়ুন: এ কেমন ভোটযুদ্ধ! হেরেও জিতে গেলেন প্রার্থীরা, আজব কাণ্ড উত্তরপ্রদেশে]

জানা গিয়েছে, কেন্দ্র সরকারকে একক টিকা নীতি ও রাজ্যগুলিকে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন প্রদানের নির্দেশ দেওয়ার জন্য শীর্ষ আদালতে আবেদন জানিয়েছে রাজ্য সরকার। তৃতীয়বার ক্ষমতায় ফিরে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই জানিয়েছিলেন যে, দ্রুত রাজ্যে তথা গোটা দেশে বিনামূল্যে ভ্যাকসিনের পর্যাপ্ত জোগান না দিলে ধরনায় বসবেন তিনি। এছাড়া, আজ অর্থাৎ শুক্রবার রাজ্যের জন্য প্রয়োজনীয় অক্সিজেন চেয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে (PM Narendra Modi) চিঠি লেখেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (CM Mamata Banerjee)। আগামী কয়েকদিনে এ রাজ্যে অক্সিজেনের প্রয়োজনীয়তা বাড়বে। সেসময় পর্যাপ্ত অক্সিজেন সরবরাহ করুক কেন্দ্র। এই আবেদন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি পাঠান বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। তাতে যাবতীয় হিসেবনিকেশের কথাও উল্লেখ করেছেন তিনি। এই মুহূর্তে রাজ্যে প্রতিদিন ৪৭০ মেট্রিক টন অক্সিজেন প্রয়োজন। আগামী ৭-৮ দিনের মধ্যে তার চাহিদা পৌঁছতে পারে ৫৫০ মেট্রিক টনে। তাই সেই বাড়তি অক্সিজেন সরবরাহ করতে হবে কেন্দ্রকেই। চিঠিতে এমনই দাবি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, করোনার (Coronavirus) দ্বিতীয় ধাক্কায় এবার সবচেয়ে বেশি সংকট দেখা দিয়েছে অক্সিজেনে। কোভিড রোগীকে সুস্থ করে তোলার অন্যতম উপকরণ এটি। কিন্তু সম্প্রতি দেশজুড়ে বিভিন্ন প্রান্তেই অক্সিজেনের অভাব প্রকট। বাংলায় সেই সমস্যা বিশেষ ছিল না। পর্যাপ্ত অক্সিজেন তৈরি হয় রাজ্যের প্লান্টগুলিতেই। বরং উদ্বৃত্ত অক্সিজেন এতদিন অন্যান্য রাজ্যে রপ্তানিও করেছে বাংলা। তবে এবার আর তা হওয়ার উপায় নেই। প্রতিদিন এখানেও বাড়ছে অক্সিজেনের চাহিদা। যে হারে সংক্রমণ বাড়ছে, তাতে এ রাজ্যে যে পরিমাণ অক্সিজেন তৈরি হয়, তার চেয়ে বেশিই প্রয়োজন হবে বলে মুখ্যমন্ত্রীর ধারণা। তিনি নিজেও আগামী ১৫ দিনের জন্য সকলকে সতর্ক করে দিয়েছেন। তাঁর আশঙ্কা, এই সময়ে আরও বাড়বে করোনা সংক্রমণ। আর তাতেই চিকিৎসার জন্য মেডিক্যাল অক্সিজেনের (MO) চাহিদা আরও বৃদ্ধি পাবে।

[আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্ত আশারাম বাপু, প্রবল শ্বাসকষ্ট নিয়ে রয়েছেন ভেন্টিলেশনে]

Advertisement
Next