Advertisement

Abhishek Banerjee: অভিষেককে রুখতে নয়া কৌশল? বুধবার বিজেপির ডাকে রেল ধর্মঘট ত্রিপুরায়

03:52 PM Sep 20, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সন্দীপ চক্রবর্তী: আগামী ২২ তারিখ আগরতলায় মহামিছিলের ডাক দিয়েছে তৃণমূল (TMC)। নেতৃত্বে থাকার কথা দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Abhishek Banerjee)। তবে তৃণমূলের সেই কর্মসূচি রুখতে আরেক কৌশল নিল ত্রিপুরার (Tripura) বিজেপি সরকার। মহামিছিল আটকাতে আগামী ২২ তারিখ রাজ্যজুড়ে রেল ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে। ওইদিন সকাল ৬টা থেকে দুপুর ২টো পর্যন্ত রেল অবরোধ কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, ওইদিন ধর্মনগর থেকে আগরতলা পর্যন্ত ট্রেনে যাতে দলের কর্মীরা যাতায়াত করতে না পারেন, তাদের আটকাতেই এই কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।

Advertisement

সূত্রের খবর, ২২ তারিখ আগরতলায় অভিষেকের মিছিলের জন্য এখনও পুলিশের অনুমতি মেলেনি বলেই খবর। সেই অনুমতি আদায়ের জন্য এবার ত্রিপুরা হাই কোর্টের (Tripura High Court) দ্বারস্থ হয়েছিল তৃণমূল। বিচারপতি মামলাটি গ্রহণ করেন। মঙ্গলবার দুপুর ১২টার মধ্যে তৃণমূলের এই কর্মসূচি নিয়ে ত্রিপুরা পুলিশের মতামত জানতে চাওয়া হয়েছে। ফলে এবারও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কর্মসূচি ঘিরে জটিলতা থাকার আশঙ্কা থাকছেই।

[আরও পড়ুন: পরিবারের আপত্তি, প্রেমিককে বিয়ে করতে প্রিয়জনদের বিষ খাওয়াল তরুণী!]

এর আগে ১৫ তারিখ আগরতলায় তৃণমূলের মহামিছিল হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেই কর্মসূচিতে অনুমতি দেয়নি পুলিশ। পরেরদিন অর্থাৎ ১৬ তারিখও মেলেনি পুলিশের অনুমতি। ওইদিন মিছিলের অনুমোদন খারিজের পক্ষে ত্রিপুরা পুলিশের যুক্তি ছিল, ১৭ তারিখ বিশ্বকর্মা পুজো (Vishwakarma Puja)। তবে ১৬ তারিখ থেকেই ত্রিপুরায় পুজো শুরু হয়ে যায়। ধুমধাম করেই প্রায় প্রতিটা মোড়েই পুজো হয় এখানে। পুলিশকর্মী-সহ অনেকেই পুজোয় শামিল হন। ফলে বিভিন্ন জায়গায় পুলিশ মোতায়েন থাকে। তাই ১৬ তারিখ তৃণমূল কর্মসূচির পরিকল্পনা করলে নিরাপত্তার সমস্যা দেখা দিতে পারে।

[আরও পড়ুন: Coronavirus: গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনার বলি ২৯৫, অনেকটা কমল অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা]

এসবের জেরে কর্মসূচি পিছোতে হয়েছে। পরে ঠিক হয়, ২২ তারিখ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে মহামিছিল হবে। তবে আজ অর্থাৎ ২০ তারিখ পর্যন্তও পুলিশি অনুমোদন মেলেনি বলেই খবর। সেই কারণেই এবার তৃণমূল নেতৃত্ব ত্রিপুরা হাই কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে। জরুরিভিত্তিতে শুনানির জন্য আবেদন করা হয়েছে।

Advertisement
Next