গোষ্ঠীকোন্দল, দলত্যাগে জীর্ণ বঙ্গ বিজেপি! কর্মীদের চাঙ্গা করতে জুনের শুরুতেই রাজ্যে নাড্ডা

08:31 PM May 25, 2022 |
Advertisement

বুদ্ধদেব সেনগুপ্ত: গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে দীর্ণ দলের কর্মীদের মনোবল ও আত্মবিশ্বাস বাড়াতে রাজ্যে আসছেন বিজেপির (BJP) সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা (JP Nadda)। জুনের শুরুতেই নাড্ডা দু’দিনের জন্য রাজ্যে আসবেন বলে বিজেপি সূত্রের খবর। ৭ ও ৮ জুন বিজেপি সভাপতির বাংলায় থাকার কথা। দু’দিনের এই সফরের চূড়ান্ত সূচি স্থির না হলেও প্রাথমিকভাবে শোনা যাচ্ছে মূলত সাংগঠনিক পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতেই রাজ্যে আসছেন নাড্ডা। বুথ সশক্তিকরণের অংশ হিসাবে দলের সাংসদ এবং বিধায়কদের নতুন দায়িত্বও দিয়ে যেতে পারেন বিজেপি সভাপতি।

Advertisement

বুধবার দলের সাংসদ, বিধায়ক, রাজ্য সভাপতি ও সাংগঠনিক কার্যকর্তাদের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক করেন। দিল্লি থেকে সব করে দেওয়া হবে। এমন ভাবলে ভুল হবে। জমিতে পা রেখে রাজনীতি করতে হবে বলে নেতৃত্বকে সতর্ক করেন নাড্ডা। বুধবার ভার্চুয়াল বৈঠকে বুথে সংগঠন গড়ে তোলার ওপর জোর দেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। সাংসদের নিজের এলাকার ১০০টি দুর্বল বুথ চিহ্নিত করার নির্দেশ দেন। 

[আরও পড়ুন: বাংলার বাইরে ৮ রাজ্যে বড় দায়িত্বে দিলীপ ঘোষ, বঙ্গ রাজনীতি থেকে সরানোর ছক? উঠছে প্রশ্ন]

সূত্রের খবর, নাড্ডার এই সফর থেকেই আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচন এবং ২০২৪ লোকসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করে দেবে বিজেপি (BJP)। আগামী ছ’মাসের মধ্যে দুর্বল বুথে সংগঠন বাড়তে কী কী পদক্ষেপ করার প্রয়োজন তা দলকে জানানোর নির্দেশ দেন বলে সূত্রের খবর। বিধায়কদের ক্ষেত্রে অবশ্য বুথের সংখ্যা ২৫। কিন্তু পার্টি অফিসে বসে নয়, মানুষের সঙ্গে কথা বলে তাঁদের অভাব অভিযোগ শোনার নির্দেশ দেন। তবে বঙ্গ বিজেপি সম্পর্কে ওয়াকিবহাল দলের সর্বভারতীয় সভাপতি। এদিন বৈঠকে উপস্থিত বঙ্গ নেতৃত্বকে তা ঠারেঠোরে বুঝিয়ে দেন।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: ২৪ পরিবারের সঞ্চয় হাতিয়ে আইপিএল বেটিং! এক কোটি টাকা নয়ছয় পোস্টমাস্টারের]

বিজেপি নেতাদের একাংশ মনে করছে, গোষ্ঠী দ্বন্দ্বে দীর্ণ দলের কর্মীদের মনোবল, আত্মবিশ্বাস বাড়াতে হবে। তাই রাজ্যে কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়মিত আসাটা জরুরি। বিজেপির রাজ্য নেতারা চাইছেন, আগামী দিনে জেপি নাড্ডা, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah) এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে (Narendra Modi) ঘুরিয়ে ফিরিয়ে রাজ্যে আনতে। সেই উদ্দেশে দিল্লির নেতাদের কাছে অনুরোধও জানানো হয়েছে।

Advertisement
Next