Advertisement

সীমান্তে সংঘাতের আবহেও লাদাখে ধৃত চিনা সৈনিককে ফেরত পাঠাল ভারত

02:29 PM Jan 11, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল দেশ: লাদাখে ধৃত চিনা জওয়ানকে মুক্তি দিল ভারত (India)। প্রায় ৭২ ঘণ্টা হেফাজতে রাখার পর সোমবার ওই সৈনিককে লালফৌজের হাতে তুলে দেয় ভারতীয় সেনাবাহিনী।

Advertisement

[আরও পড়ুন: জলে আছড়ে পড়েই ‌টুকরো হয়ে যায় ইন্দোনেশিয়ার বিমানটি, ধারণা তদন্তকারীদের]

গত শুক্রবার অর্থাৎ ৮ জানুয়ারি সকালে পূর্ব লাদাখে চুশুল সেক্টরের অন্তর্গত প্যাংগং হ্রদের দক্ষিণ পাড়ে চিনা ফৌজের ওই সৈনিককে আটক করে ভারতীয় সেনা। এ বিষয়ে সঙ্গে সঙ্গে চিনাবাহিনীকেও জানানো হয়। এরপরই বেজিং দাবি জানায়, আটক সৈনিককে দ্রুত মুক্তি দিক ভারত এবং সীমান্তে শান্তি বজায় রাখুক। লালফৌজের তরফে দাবি করা হয়, অন্ধকারে পথ ভুলে ভারতে ঢুকে পড়েছিল ওই সিপাহী। প্রসঙ্গত, গত অক্টোবর মাসেও লাদাখের ডেমচক এলাকায় ওয়াং ইয়া লং নামের এক চিনা সৈনিককে গ্রেপ্তার করা হয়। যদিও জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এবারও ফের চিনা সৈনিকের অনুপ্রবেশে রীতিমতো উদ্বিগ্ন প্রতিরক্ষা মহল। বিশ্লেষকদের ধারণা, ভারতীয়ও জমি থেকে এখনই সরতে রাজি নয় চিনারা। বরং লাগাতার আগ্রাসন ও অনুপ্রবেশ চালিয়ে ভারতের প্রত্যুত্তর কেমন হতে পারে সেই বিষয়ে জানতে চাইছে বেজিং।

উল্লেখ্য, পূর্ব লাদাখে ভারত ও চিনের মধ্যে সংঘাতের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র হচ্ছে প্যাংগং হ্রদে (Pangong Tso)। দক্ষিণ পাড়ে খুব অল্প দূরত্বে মুখোমুখি দাঁড়িয়ে ভারত ও চিনের ফৌজ। গত মার্চ মাস থেকেই প্যাংগং হ্রদের উত্তর পাড়ে আগ্রাসন চালিয়ে আসছিল চিনা বাহিনী (PLA)। ১৫ জুনের সংঘর্ষের পর দুই দেশের মধ্যে সেনা প্রত্যাহার নিয়ে বেশ কয়েক দফা আলোচনা হলেও কাজের কাজ কিছু হয়নি। বৈঠকের টেবিলে একরকম কথা আর বাস্তবে অন্যরকম কাজ, এটাই নীতি হয়ে দাঁড়িয়েছে চিনা বাহিনীর। এর মধ্যে আবার গত ২৯ এবং ৩০ আগস্ট চিনারা ভারতীয় সীমান্তে ঢোকার চেষ্টা করেছিল। যা ভারত প্রতিহত করেছে। কিন্তু তারপর থেকেই প্যাংগংয়ের দক্ষিণ প্রান্তে ক্রমাগত উসকানিমূলক পদক্ষেপ করে চলেছে চিনারা। দ্বিপাক্ষিক চুক্তি না মেনে একেবারে ভারতীয় সেনার ঢিলছোঁড়া দুরত্বে সেনা মোতায়েন করেছে ড্রাগন।

[আরও পড়ুন: ‘পাকিস্তানে অশান্তি ছড়াতে ইসলামিক জঙ্গিদের মদত দিচ্ছে ভারত’, অভিযোগ ইমরান খানের]

 

Advertisement
Next