দহন জ্বালায় পুড়ছে দিল্লি, তাপমাত্রা পৌঁছাল ৪৬. ১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে

10:00 PM May 14, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তীব্র দাবদহে পুড়ছে দিল্লি (Delhi)। শুক্রবার নজফগড়ের তাপমাত্রার পারদ ছুঁয়েছিল ৪৬.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়া দপ্তরের বক্তব্য, আপাতত এই পরিস্থতির পরিবর্তন হবে না। মৌসম ভবন জানিয়েছে, রাজধানীর তাপমাত্রার পারদ এখন ৪৬, এমনকী ৪৭ ডিগ্রিও ছুঁতে পারে। অন্যদিকে গড় তাপমাত্রা ৪৪ ডিগ্রির আশপাশে থাকবে বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা। এই পরিস্থিতিতে বাসিন্দাদের বাড়ি থেকে বেরোতে বারণ করা হচ্ছে। রাজধানীতে জারি হয়েছে কমলা সতর্কতা।

Advertisement

উল্লেখ্য, শুক্রবার নজফগড়ের তাপমাত্রা সবেচেয়ে বেশি থাকলেও পিছিয়ে ছিল না জাফরপুরও। সেখানাকার আবহাওয়া স্টেশনে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ধরা পড়েছিল ৪৫.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়াও মুঙ্গেশপুর আবহাওয়া স্টেশনে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ধরা পড়ে ৪৫.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তাপপ্রবাহ থেকে বাঁচতে প্রশাসন পরামর্শ দিচ্ছে সাধারণ মানুষকে। প্রচুর পরিমাণ জলপানের পাশাপাশি উপযুক্ত খাবার খেতে বলা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: ২০২৪-এ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ‘মমতাদি’কে চাই, ওয়েবসাইট চালু করে শুরু প্রচার]

কিছুদিন আগেই আবহ বিজ্ঞানীরা আগেই জানিয়েছিলেন, খুব শীঘ্রই উত্তর ভারতের তাপমাত্রা ৫০ ডিগ্রি পেরিয়ে যাবে। মনে করা হচ্ছে সেই দিকেই এগোচ্ছে দিল্লি। উল্লেখ্য, চলতি বছরেই এপ্রিলের গড় তাপমাত্রা গত ১২২ বছরের তাপমাত্রার ইতিহাসে রেকর্ড গড়েছে। উত্তর পশ্চিম ও মধ‌্য ভারতের দিল্লি, পাঞ্জাব, উত্তরপ্রদেশের পশ্চিমাংশ, পূর্ব রাজস্থান ও তেলেঙ্গানার উত্তর অংশে তাপপ্রবাহ (Heat Wave) চলতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছিল। বর্তমান পরিস্থিতি সেরকমই।

Advertising
Advertising

আবহবিদরা জানান, “সাধারণত মে মাসকে সর্বাধিক গরমের মাস বলে মনে করা হয়। কিন্তু এবার উত্তর পশ্চিম ও মধ‌্য ভারতে এপ্রিলের গড় তাপমাত্রা ছিল ৩৫.৯০ ডিগ্রি সেলসিয়াস ও ৩৭.৭৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল। যা স্বাভাবিক গড় তাপমাত্রার চেয়ে ৩.৩৫ ডিগ্রি বেশি। অ‌ন‌্যদিকে মধ‌্য ভারতে ১৯৭৩ সালের এপ্রিলের গড় তাপমাত্রা ৩৭.৭৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের রেকর্ড এ বছর ভেঙে গিয়েছে। সেই সময়েই মনে করা হচ্ছিল ভয়ংকর মে মাস আসতে চলেছে। কার্যত সেই অবস্থার মুখোমুখি উত্তর ভারত। 

[আরও পড়ুন: শরদ পাওয়ারকে নিয়ে ‘অশালীন’ পোস্ট! এফআইআর দায়ের মহারাষ্ট্রের অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে]

দিল্লি-সহ উত্তর ভারত যখন তাপপ্রবাহে পুড়ছে, তখন কেরলে ভারী বৃষ্টির সতর্কতা জারি করল স্থানীয় প্রশাসন। এরনাকুলাম ও লুডুক্কিতে লাল সতর্কতা জারি হয়েছে। অন্যদিকে কমলা সতর্কতা জারি হয়েছে তিরুবন্তপুরম-সহ বেশ কয়েকটি জেলায়। বৃষ্টির পাশপাশি ৪০-৫০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইবে বলেও জানিয়েছে আবহ দপ্তর।

Advertisement
Next