Advertisement

‘বিনামূল্যে পিজ্জা চাওয়া ওর পুরনো স্বভাব’, Zomato বিতর্কে বিস্ফোরক দাবি হিতেশার প্রাক্তন রুমমেটের

06:12 PM Mar 17, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জোম্যাটো (Zomato) কাণ্ডে উত্তাল নেট দুনিয়া। গত ৯ মার্চের ঘটনায় দেশজুড়ে বিতর্ক ঘনিয়ে ওঠে ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে। খাবার ডেলিভারি দিতে এসে এক মহিলাকে ঘুষি মেরে নাক ফাটিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে ডেলিভারি বয়ের বিরুদ্ধে। যদিও কামরাজ নামের ওই ডেলিভারি বয়ের দাবি, হিতেশা চন্দ্রাণী নামের মহিলা তাঁকে জুতো ছুঁড়ে মেরেছিলেন। তাঁর অভিযোগের ভিত্তিতে এফআইআর দায়ের করেছে বেঙ্গালুরু পুলিশ (Bengaluru Police)। এবার এই বিতর্ককে আরও উসকে দিলেন জসমিন নেহরা নামের এক মহিলা। নিজেকে হিতেশার প্রাক্তন রুমমেট বলে দাবি করা ওই মহিলার অভিযোগ, আগেও হিতেশা এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন!

Advertisement

একটি ইউটিউব ভিডিওর কমেন্ট সেকশনে এব্যাপারে কমেন্ট করেন জসমিন। তাঁর দাবি, বছর তিনেক ধরে তিনি হিতেশার রুমমেট ছিলেন। তখন হিতেশা প্রায়ই ডোমিনোজ ও পিজ্জা হাট থেকে খাবার আনাতেন। সেই সময় তিনি অনেকবারই হিতেশাকে বিনামূল্যে খাবার জোগাড় করার চেষ্টা করতে দেখেছিলেন। সেইসঙ্গে ডেলিভারি বয়দের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করতেও দেখেছিলেন তিনি।

[আরও পড়ুন: ‘বিহারের লোক টিকা পেল না কেন?’ ঝাড়গ্রাম থেকে বিজেপির বিরুদ্ধে ‘মিথ্যাচারে’র অভিযোগ মমতার]

প্রথম থেকেই এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিতর্ক ছড়াতে শুরু করেছিল। গত ১০ মার্চ একটি ভিডিও পোস্ট করে ঘটনার কথা প্রকাশ্যে আনেন হিতেশা। জানান, খাবার ডেলিভারি নিয়ে বচসা হওয়ায় ডেলিভারি বয় কামরাজ নাকি মেরে তাঁর নাক ফাটিয়ে দিয়েছেন। এমনকী নাক থেকে রক্ত ঝরার ছবিও পোস্ট করেন। স্বাভাবিকভাবেই মহিলা ক্রেতার অভিযোগ শুনে ডেলিভারি বয়ের বিরুদ্ধে সরব হয় নেটিজেনরা। কিন্তু কামরাজের বক্তব্য সামনে আসার পরই ঘটনার মোড় ঘুরে যায়।

কামরাজের দাবি, খাবার ডেলিভারির জন্য ওই মহিলার অ্যাপার্টমেন্টে পৌঁছতে খানিকটা দেরি হয়েছিল তাঁর। ভেবেছিলেন মহিলা খাবার নেওয়ার পর টাকা দেবেন। কিন্তু খাবারের ডেলিভারি দেরি করে আসায় তিনি পেমেন্ট দিতে চাননি। অতিরিক্ত জ্যাম থাকায় বিলম্বের জন্য হিতেশার কাছে ক্ষমাও চেয়ে নিয়েছিলেন কমরাজ। কিন্তু তাতে বিশেষ লাভ হয়নি। এরপর জোম্যাটোর তরফে কামরাজকে বলা হয়, অর্ডারটি বাতিল করে দেওয়া হয়েছে। সেই জন্য তাঁকে খাবারের প্যাকেটটি ফেরত দিতে বলা হয়। কিন্তু তা দিতেও অস্বীকার করেন হিতেশা। উলটে রীতিমতো গালিগালাজ করে চিৎকার করতে থাকেন। তারপরই চপ্পল ছুঁড়ে ডেলিভারি বয়কে মারেন বলে অভিযোগ। কামরাজের দাবি, ঠিক এই সময়ই দুর্ঘটনাবশত ওই মহিলার নিজের হাতের আংটিই লেগে নাক ফেটে যায়। রক্ত ঝরতে থাকে। গোটা ঘটনা জানার পর ডেলিভারি বয়ের পাশে দাঁড়িয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সোচ্চার হয়েছিলেন অভিনেত্রী পরিণীতি চোপড়াও।

[আরও পড়ুন: আইন পালটে ২৪ সপ্তাহ পর্যন্ত গর্ভপাতে সায় রাজ্যসভার, আওতায় অবিবাহিতরাও]

Advertisement
Next