Advertisement

নয়া কোভিডবিধি জারি করল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক, ১ ডিসেম্বর থেকে কার্যকর নতুন নিয়ম

05:49 PM Nov 25, 2020 |

নন্দিতা রায়, নয়াদিল্লি: উদ্বেগ বাড়িয়ে ফের ঊর্ধ্বমুখী দেশের করোনা গ্রাফ। এমন আবহে বুধবার নতুন কোভিডবিধি জারি করল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক (Ministry of Home)। সেই নির্দেশিকায় কনটেনমেন্ট জোনে কড়াভাবে নিয়মকানুন মানার উপর জোর দিয়েছে কেন্দ্র সরকার। পাশাপাশি সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, রাজ্য সরকার কোনও লকডাউন (Lockdown) করা চলবে না। তবে সংক্রমণ রুখতে নাইট কারফিউ জারি করা যেতে পারে। 

Advertisement

অক্টোবরের শেষে আনলক ৫-এর নির্দেশিকার মেয়াদ আরও একমাস বাড়ানো হয়েছিল। এবার নভেম্বর মাস শেষ হওয়ার আগেই নতুন এক দফা নির্দেশিকা জারি করল কেন্দ্রীয় সরকার। যা ১ ডিসেম্বর থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত কার্যকর থাকবে। অর্থাৎ বছর শেষেও পুরোপুরি স্বাভাবিক হচ্ছে না জনজীবন। 

[আরও পড়ুন : ফের উদ্বেগ বাড়াল দেশের কোভিড গ্রাফ, দৈনিক সংক্রমণের তুলনায় কমল সুস্থতার হার]

কনটেনমেন্ট জোনে (Containment Zone) কড়া নজর রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। চিকিৎসা সংক্রান্ত জরুরি পরিস্থিতি ছাড়া যাতে কেউ ওই এলাকায় আসা-যাওয়া করতে না পারেন, সেদিকে কড়া নজর রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় প্রশাসনকে এ দিকে কড়া নজর রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি, পরীক্ষা বৃদ্ধি, কন্ট্রাক্ট ট্রেসিং, আইসোলেশন বাড়ানোর দিকেও নজর রাখতে বলা হয়েছে।

উৎসব পরবর্তী পরিস্থিতিতে মহারাষ্ট্র, দিল্লি, গুজরাট, বাংলা-সহ একাধিক রাজ্যে করোনা সংক্রমণ হু হু করে বাড়ছে। এমন আবহে কয়েকটি রাজ্যে নাইট কারফিউ জারি করা হচ্ছে। যা দেখে নতুন করে লকডাউনের গুজব ছড়িয়েছিল। সেই গুজব সম্পূর্ণ উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নয়া নির্দেশিকায়। বলা হয়েছে, সংক্রমণ রুখতে নাইট কারফিউ-এর মতো পদক্ষেপ করা যেতে পারে। কিন্তু কেন্দ্রের অনুমতি ছাড়া কোনও লকডাউন করা যাবে না। চলবে না অন্তঃরাজ্য বা আন্তঃরাজ্য গণপরিবহণ চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা। 

নির্দেশিকায় আরও বলা হয়েছে, যে সমস্ত এলাকায় সপ্তাহে ১০ শতাংশের বেশি করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলছে, সেখানে থাকা অফিসগুলির দিকে নজর দিতে হবে। প্রয়োজনে অফিসের টাইমিং বদল করতে হবে। 

[আরও পড়ুন : আরও কাছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘নিভার’, সন্ধের মধ্যে আছড়ে পড়তে চলেছে চেন্নাই উপকূলে]

পুরনো সমস্ত নিয়মই কার্যকর থাকছে। খোলা থাকবে সিনেমা হল, অনুষ্ঠান মঞ্চ। তবে প্রয়োজনীয় করোনাবিধি, যেমন- মাস্ক পরা, স্যানিটাইজার ব্যবহার-সহ একাধিক নিয়ম মানার উপর জোর দেওয়া হয়েছে। 

Advertisement
Next