গলছে বরফ! পয়গম্বর বিতর্কের আবহেই আমিরশাহী যাচ্ছেন মোদি

04:10 PM Jun 24, 2022 |
Advertisement

সংবদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পয়গম্বর বিতর্কের আবহেই সংযুক্ত আরব আমিরশাহী যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ২৬ থেকে ২৮ জুনের সফরে প্রথমে জার্মানিতে জি-৭-এর বৈঠকে আমন্ত্রিত রাষ্ট্রের প্রতিনিধি হিসাবে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। তারপর সেখান থেকে তিনি যাবেন আবু ধাবি। বিশ্লেষকদের ধারণা, আরব বিশ্বের সঙ্গে সম্পর্কে সাম্প্রতিক সময়ে জমা বরফ কিছুটা হলেও গলছে।

Advertisement

বিদেশমন্ত্রক সূত্রে খবর, জুনের ২৮ তারিখ আবু ধাবি পোঁছবেন প্রধানমন্ত্রী মোদি (Narendra Modi)। উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই প্রয়াত হন আমিরশাহীর প্রেসিডেন্ট শেখ খলিফা বিন জায়েদ আল নাহিয়ান (Zayed Al Nahyan)। নতুন রাজা হন প্রয়াত শাসকের সৎভাই শেখ মহম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান। তাঁর কাছেই প্রয়াত শাসকের মৃত্যুতে ব্যক্তিগত ভাবে শোকপ্রকাশ করতেই এই সফর প্রধানমন্ত্রীর। একইসঙ্গে দেশটির বর্তমান প্রেসিডেন্ট তথা আবু ধাবির শাসক শেখ মহম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ানকে অভিনন্দন জানাবেন মোদি। তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে, আমিরশাহীর সঙ্গে নয়াদিল্লির সম্পর্ক অত্যন্ত গভীর। গত মে মাসে আরব দেশটির শাসক খলিফা বিন জায়েদ আল নাহিয়ানের মৃত্যুর পর জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রেখে শোকপ্রকাশ করেছিল ভারত। শোকসভায় যোগ দিয়ে আমিরশাহী গিয়েছিলেন উপ-রাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাইয়া নাইডু।

[আরও পড়ুন: চিনকে পালটা, মাঝসমুদ্রে অত্যাধুনিক মিসাইল উৎক্ষেপণ করে শক্তিপ্রদর্শন ভারতের]

বিশ্লেষকরা মনে করছেন, সামরিক, কৌশলগত ও কূটনীতির নিরিখে এই সফর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, ইজরায়েল, সংযুক্ত আরব আমিরশাহী ও ভারতকে নিয়ে পশ্চিম এশিয়াত কার্যত একটি চতুর্দেশীয় অক্ষ গড়ে তুলেছে আমেরিকা। আগামী জুলাই মাসে এই পশ্চিম এশিয়া সফরকালে চারদেশের বৈঠকে যোগ দেবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তাই চিনকে নজরে রেখে এই জোটের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া, আবু ধাবির সঙ্গে ভারতের বাণিজ্যিক সম্পর্কও যথেষ্ট মজবুত। বিদেশে গম রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করলেও আবু ধাবিকে খাদ্যশস্যের জোগান দিচ্ছে নয়াদিল্লি।

Advertising
Advertising

উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগেই পয়গম্বরকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন বিজেপি নেতা নূপুর শর্মা ও নবীন জিন্দাল। সেই ঘটনার প্রতিবাদে সরব হয় মুসলিম বিশ্ব। ভারতের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে প্রতিবাদ জানায় কুয়েত, সৌদি আরব-সহ অনেকেই। কিন্তু সেবার মৌখিক প্রতিবাদ জানালেও ভারতের রাষ্ট্রদূতকে তলব করেনি আবু ধাবি। আর এহেন সময়ে প্রধানমন্ত্রী মোদির সফরে এটা স্পষ্ট যে আরব বশিহবের সঙ্গে সম্পর্কে যে সাময়িক ফাটল তৈরি হয়েছিল তা ক্রমে জোড়া লাগছে।

[আরও পড়ুন: ‘শিব সেনা বিধায়করা অসমে নাকি! জানি না তো’, আকাশ থেকে পড়লেন হিমন্ত]

Advertisement
Next