Advertisement

এবার ভোট পরবর্তী হিংসায় উত্তপ্ত উত্তরপ্রদেশ, মৃত অন্তত ৬

11:39 AM May 08, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এরাজ্যের ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে রীতিমতো গলা ফাটাচ্ছে বিজেপি। অথচ, খোদ গেরুয়া শিবিরের ‘পোস্টার বয়’ যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath) শাসিত রাজ্য উত্তপ্রদেশের অবস্থা তথৈবচ। সদ্য উত্তরপ্রদেশের পঞ্চায়েত নির্বাচন শেষ হয়েছে। তারপরই রাজ্যে শুরু হয়েছে লাগামহীন সন্ত্রাস। বিরোধীদের অভিযোগ, এখনও পর্যন্ত যোগীর রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসার বলি হয়েছেন অন্তত ৬ জন। আহত হয়েছেন বহু রাজনৈতিক কর্মী। ইতিমধ্যেই বিএসপি নেত্রী মায়াবতী (Mayawati) মুখ্যমন্ত্রী আদিত্যনাথকে তীব্র কটাক্ষে বিঁধেছেন।

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

স্থানীয় সূত্রের দাবি, পঞ্চায়েত ভোটে বিজেপি ধাক্কা খেতেই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুর,দেওরিয়া, আজমগড়, জৈনপুরের মতো জায়গা। বহু জয়ি জনপ্রতিনিধি এবং তাঁদের আত্মীয়দের আক্রান্ত হতে হচ্ছে। এখনও [পর্যন্ত ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত বহু। উত্তরপ্রদেশ পুলিশ এখনও পর্যন্ত হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে মামলা দায়ের করেছে ২ হাজার জনের বিরুদ্ধে। শুক্রবার পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৬২১ জনকে। আটক প্রায় ৬ হাজার। পুলিস সূত্রের খবর, প্রায় ৭ লক্ষ ২৮ হাজার আগ্নেয়াস্ত্র বাজেয়াপ্ত হয়েছে। সার্বিকভাবে পরিস্থিতিতে খুবই উত্তপ্ত সেটা বলার অপেক্ষা রাখে না। এ নিয়ে ইতিমধ্যেই সরব হয়ছেন বিএসপি (BSP) সুপ্রিমো মায়াবতী। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে তিনি অনুরোধ করেছেন, যত দ্রুত সম্ভব পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

[আরও পড়ুন: রাজ্যজুড়ে লাগাতার অশান্তির প্রতিবাদ, স্পিকার নির্বাচন ও বিধানসভা অধিবেশন বয়কট বিজেপির]

প্রসঙ্গত, ভোটের ফলপ্রকাশের পর এরাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে রাজনৈতিক হিংসার অভিযোগ আসছে। বিজেপির দাবি, তাঁদের বেশ কিছু কর্মীকে শাসকদলের হাতে আক্রান্ত হয়ে খুন হতে হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে বাংলায় রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবিও জানাচ্ছে গেরুয়া শিবির। ইতিমধ্যেই রাজ্যের ভোট পরবর্তী হিংসার প্রতিবাদে একাধিক ধরনা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে গেরুয়া শিবির। শনিবার বিধানসভার স্পিকার নির্বাচন প্রক্রিয়াও বয়কট করেছে তারা। যতদিন হিংসা না থামছে ততদিন বিজেপির কোনও বিধায়ক বিধানসভা অধিবেশনে যাবেন না বলেও জানিয়ে দিয়েছেন দিলীপ ঘোষ। এমনকী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে চার সদস্যের এক প্রতিনিধি দল ইতিমধ্যেই রাজ্য এসেছে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে। এখন প্রশ্ন উঠছে, উত্তরপ্রদেশেও কি একইভাবে ভোট পরবর্তী খতিয়ে দেখতে দল পাঠাবে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক?

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
Advertisement
Next