Advertisement

এবার ত্রিপুরায় গণধর্ষণের শিকার ৯০ বছরের বৃদ্ধা, মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন নির্যাতিতা

11:05 AM Nov 01, 2020 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশে প্রতি ১৬ মিনিটে একজন মহিলা ধর্ষণের (Rape) শিকার হন। এনসিআরবির সাম্প্রতিক রিপোর্ট এমন করুণ পরিসংখ্যানই সামনে এনেছিল কয়েকদিন আগেই। একরত্তি শিশু থেকে ৯০ বছরের বৃদ্ধা। এদেশে পুরুষের যৌন লালসার হাত থেকে যেন কারওই রেহাই নেই! শনিবারই উত্তরপ্রদেশে এক চার বছরের শিশুকে যৌন নির্যাতন করার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয় অভিযুক্তকে। এবার ত্রিপুরায় (Tripura) এক ৯০ বছরের বৃদ্ধাকে গণধর্ষণের (Gang rape) অভিযোগে শিউরে উঠল দেশ।

Advertisement

উত্তর ত্রিপুরার কাঞ্চনপুরের বাসিন্দা ওই বৃদ্ধা বাড়িতে একাই থাকেন। সেই সুযোগে গত ২৪ অক্টোবর তাঁর বাড়িতে চড়াও হয় দুই অভিযুক্ত। অত্যাচারের ধাক্কায় প্রবল অসুস্থ হয়ে পড়েন নির্যাতিতা। তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়। অভিযুক্তদের মধ্যে একজন ক্ষমতাশালী ব্যক্তি হওয়ায় ধর্ষণের অভিযোগ জানাতে সময় লাগল বৃদ্ধার আত্মীয়দের। অবশেষে তাঁরা থানায় ওই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তও শুরু করেছে পুলিশ। 

[আরও পড়ুন: ‘পরিচয় লুকিয়ে হিন্দু মেয়েদের প্রেমের ফাঁদে ফেললে মৃত্যু অনিবার্য’, যোগীর মন্তব্যে বিতর্ক]

ঠিক কী ঘটেছিল? অসহায় বৃদ্ধা পুলিশকে জানিয়েছেন, তিনি একাই থাকেন বাড়িতে। ঘটনার দিন মাঝরাতে তাঁর বাড়িতে ঢুকে পড়ে অভিযুক্তরা। তাদের মধ্যে অঞ্জন নামা নামে এলাকার এক ক্ষমতাশালী ব্যক্তি ছাড়া অন্যজন বৃদ্ধার অপরিচিত। বৃদ্ধার কথায়, ‘‘অঞ্জন ও অন্য লোকটি মধ্যরাতে আমার বাড়িতে ঢুকে পড়ে। ওরা আমাকে ধর্ষণ করে প্রায় আধমরা অবস্থায় রেখে পালিয়ে যায়। পরের দিন সকালে আমি চেতনা ফিরে পেলে প্রতিবেশীদের খবর দিই।’’ পুলিশে খবর দিতে দেরি হওয়ার কারণ জানাতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘‘আসলে অঞ্জন খুব ক্ষমতাশালী। আমরা ওর বিরুদ্ধে অভিযোগ করার সাহস পাচ্ছিলাম না।’’ নির্যাতিতার শারীরিক পরীক্ষা হয়ে গিয়েছে। পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। কিন্তু অভিযুক্তরা এখনও অধরা। তবে পুলিশ জানাচ্ছে, তাদের গ্রেপ্তার করার সব রকম চেষ্টা চালানো হচ্ছে। 

[আরও পড়ুন: গান্ধীর ইচ্ছাতেই ‘দুর্বল চিত্তের’ নেহরুকে প্রধানমন্ত্রিত্ব ছেড়ে দেন প্যাটেল! দাবি কঙ্গনার]

Advertisement
Next