পুরীর সৈকতে কিশোরীর বিকৃত অর্ধনগ্ন দেহ উদ্ধার! ধর্ষণ করে খুন, অভিযোগ পরিবারের

03:23 PM Nov 29, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এক কিশোরীকে হোটেল থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে খুন এবং তারপর তাঁর মুখের বিকৃতি ঘটিয়ে দেহটি সমুদ্রে ছুঁড়ে ফেলে দেওয়ার চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠল পুরীতে। ওই কিশোরীর পরিবারের সদস্যরা এই ঘটনার উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। যদিও পুলিশের দাবি ভিন্ন।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

কী জানাচ্ছেন পুলিশ? জানানো হয়েছে, ১৮ বছরের কিশোরী ছিলেন মধ্যপ্রদেশের সাগর জেলার এক গ্রামের বাসিন্দা। হয়তো তিনি কোনও ভাবে সমুদ্রে ডুবে গিয়েছিলেন। আর সেই কারণেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে। যদিও এই দাবি মানতে রাজি নয় মৃতার পরিবার। পুরীর পুলিশ সুপারিটেন্ডেন্ট কে ভি সিংয়ের সঙ্গে দেখা করে এই ঘটনায় উচ্চ পর্যায়ের দাবি জানিয়ে এসেছেন ওই পরিবারের সদস্যরা।

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

[আরও পড়ুন: ‘বিছানায় চেপে ধরেছিল…’, ‘সোহাগ জল’ সিরিয়ালের পরিচালকের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মডেল]

গত ২৬ নভেম্বর ওই কিশোরীর কেবল অন্তর্বাস পরিহিত মৃতদেহ উদ্ধার হয় পুরীর পেন্থাকাটা এলাকার সমুদ্র সৈকত থেকে। তাঁর দেহ শনাক্ত করেন তাঁর বাবা। মৃতার পরিবারের দাবি, তিন দিন ধরে নিখোঁজ ছিলেন ওই কিশোরী।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

কিশোরীর দেহ উদ্ধারের পর থেকেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। এদিকে পুরীর পুলিশ জানিয়েছে, মৃত কিশোরীর মুখ সম্ভবত কোনও রাসায়নিক প্রয়োগে কালো করে দেওয়া হয়েছে। আঙুলগুলিও ক্ষতবিক্ষত হয়ে গিয়েছে। কিন্তু তদন্তকারী অফিসারদের দাবি, দীর্ঘ সময় জলে দেহ ডুবে থাকলেও মুখের ওই এইরকম রং হতে পারে। আর কোনও সামুদ্রিক প্রাণীর আক্রমণে আঙুলের ওই দশা হওয়া বিচিত্র নয়।

কিন্তু কিশোরীর বাবার দাবি, তাঁদের মেয়ের মুখ রাসায়নিকের ছোবলেই ওই আকার ধারণ করেছে। অ্যাসিড ঢালা হয়েছে তাঁর পিঠেও। পাশাপাশি তাঁর অভিযোগ, ময়নাতদন্ত হওয়ার পরে তাঁদের খবর দেওয়া হয়েছে। কিশোরীর পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, গত ২৩ নভেম্বর শুকোতে দেওয়া জামাকাপড় আনতে তিনি হোটেলের রুমের বাইরে গিয়েছিলেন। তারপর থেকেই কোনও খোঁজ মিলছিল না তাঁর। দাবি, সেই সময়ই তাঁকে অপহরণ করে ধর্ষণ ও খুন করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: ‘দুর্বলদের রক্ষা’য় ধর্মান্তকরণ বিরোধী আইন প্রয়োজন, সুপ্রিম কোর্টে জানাল কেন্দ্র]

Advertisement
Next