‘ফেসবুকে সংগঠন করা যায় না, মানুষের সঙ্গে থাকতে হয়’, তৃণমূলে ফিরেই বিজেপিকে তোপ অর্জুনের

07:59 PM May 22, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সময়ের হিসেবে ৩ বছর ২ মাস ৮ দিন। তারই মধ্যে বহু ফাঁকফোকর চোখে পড়েছে। উপলব্ধি হয়েছে, এই দলে থেকে মানুষের কাজ করা যায় না। কারণ, এই দল শুধু ফেসবুকের সংগঠন। কিন্তু মানুষের কাজটা করতে হয় মাঠে নেমে। যাঁরা বরাবর সেভাবে সংগঠনের কাজ করেছেন, তাঁরা কখনও কাজের যথাযথ সুযোগ পায়নি। বঙ্গ বিজেপি শুধুই এয়ার কন্ডিশন ঘরে বসে রাজনীতি করে। বিজেপি (BJP) ছেড়ে তৃণমূলে ফিরে এভাবেই সাংবাদিক সম্মেলনে নিজের সদ্য প্রাক্তন শিবিরের সমালোচনায় মুখর হলেন বারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিং (Arjun Singh)। সেইসঙ্গে দলবদলের কারণও ব্যাখ্যা করলেন। স্বীকার করলেন, ”ভুল বোঝাবুঝিতে দল ছেড়েছিলাম। ঘরের ছেলে ঘরে ফিরে এলাম।” তাঁকে দলে স্বাগত জানিয়েছেন তৃণমূল বিধায়করা।

Advertisement

রবিবার বিকেলে ক্যামাক স্ট্রিটে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Abhishek Banerjee)অফিসে সাংবাদিক বৈঠকে অর্জুন বলেন, ”বাংলার বিজেপি এসি ঘরে বসে আর ফেসবুকে সংগঠন করেন। আমরা, যাঁরা গোড়া থেকে মাঠে নেমে সংগঠন করি, মানুষের কাজ করতে অসুবিধা হচ্ছিল। পাটের সমস্যা নিয়ে আমি বারবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে বলেছিলাম। বাংলার পাটশিল্পের ক্ষতি মেনে নেব না। কেন্দ্রের কাছে পাট নিয়ে আমাদের যা দাবি ছিল, তার ৩০% আদায় করতে পেরেছি। ৭০% এখনও বাকি।” 

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: অর্জুনের ‘ঘর ওয়াপসি’, পদ্মশিবির ছেড়ে তৃণমূলে ফিরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট নতুন ছবি]

পাটশিল্পকে বাঁচাতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৎপরতার কথা মনে করিয়ে অর্জুন সিং বলেন, ”জুটের সমস্যা অবহেলা করছিল কেন্দ্র। ৬২ টি জুটমিল থেকে ৫০, সেখান থেকে ১৫ টি। বাকি সব বন্ধ। আমি সেই লড়াইয়ের জন্য আমি মন্ত্রীকে বুঝিয়েছি। নভেম্বরে মুখ্যমন্ত্রী চিঠি দিয়েছিলেন মোদিকে। তারপরও গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। আমি জানিয়েছিলাম, প্রয়োজনে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে লড়াই করব।  মমতার নেতৃত্বে দেশে বড় লড়াই সংগঠিত হবে। আমি সৈনিক হিসেবে তাতে থাকতে চাই।” 

[আরও পড়ুন: ‘মিশন প্রীতিলতা’, গাঁ-গঞ্জে ছাত্রীদের আত্মরক্ষায় মার্শাল আর্ট শেখাচ্ছে এসএফআই]

দলবদলের পর সোমবার নবান্নে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করবেন অর্জুন সিং। ইতিমধ্যে তাঁর জগদ্দলের বাড়ির সামনে থেকে বিজেপির পতাকা খুলে নেওয়া হয়েছে বলে খবর। ৩০ মে জগদ্দলে সভা করবেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এই দফায় দলবদলের পর সেখানেই প্রথম দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দেবেন অর্জুন সিং।  সভায় থাকবেন বারাকপুরের বিধায়ক রাজ চক্রবর্তী, দমদমের সাংসদ সৌগত রায়. মন্ত্রী ব্রাত্য বসু, চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, মদন মিত্ররা। শোনা যাচ্ছে, এই সভায় অর্জুনপুত্র পবন সিং যোগ দেবেন তৃণমূলে। পবন এই মুহূর্তে ভাটপাড়ার বিজেপি বিধায়ক। 

 

This browser does not support the video element.

Advertisement
Next