আদালতে যেতেই মিলল প্রাপ্য, অঙ্কিতার ফেরানোর প্রথম কিস্তির টাকা হাতে পেলেন ববিতা

06:35 PM Jul 28, 2022 |
Advertisement

গোবিন্দ রায়: আদালতের দ্বারস্থ হওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই সুরাহা। নিজের প্রাপ্য টাকা হাতে পেলেন আন্দোলন করে আইনি লড়াইয়ে জেতা কোচবিহারের (Cooch Behar) শিক্ষিকা ববিতা সরকার। মন্ত্রীকন্যা অঙ্কিতা অধিকারীর ফেরানো বেতনের প্রথম কিস্তির টাকা পেলেন ববিতাদেবী। সূত্রের খবর, ১৮৭৭ টাকা সুদ-সহ মোট ৭ লক্ষ ৯৮ হাজার ২৯৯ টাকা পেলেন তিনি। ইতিমধ্যে দ্বিতীয় কিস্তির প্রায় ৭ লক্ষ টাকা কলকাতা হাই কোর্টে (Calcutta HC) জমা দিয়েছেন মন্ত্রীকন্যা অঙ্কিতা অধিকারী। দ্বিতীয় কিস্তির টাকা নিয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত জানাবে উচ্চ আদালত।

Advertisement

এসএসসি (SSC) নিয়োগ দুর্নীতি মামলার তদন্ত শুরু হওয়ার পর হাই কোর্টের নির্দেশে স্কুলশিক্ষিকার চাকরি খোয়াতে রাজ্যের শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারীর কন্যা অঙ্কিতাকে। অভিযোগ ছিল, মেধাতালিকায় কম যোগ্যতার জায়গায় থাকা সত্ত্বেও মেখলিগঞ্জের স্কুলে চাকরি হয়েছিল অঙ্কিতার। আর বঞ্চিত হয়েছিলেন মেধাতালিকায় থাকা যোগ্যতম প্রার্থী একই জেলার ববিতা সরকার। তিনি ন্যায়বিচারের দাবিতে হাই কোর্টে মামলা করেন।

[আরও পড়ুন: ‘বিচারপতিদের আক্রমণের একটা সীমা আছে’, সংবাদমাধ্যমকে ভর্ৎসনা সুপ্রিম কোর্টের]

দীর্ঘ আইনি লড়াইয়ের পর জয়ী হন ববিতা। হেরে গিয়ে শিক্ষিকার চাকরি খোয়ান অঙ্কিতা অধিকারী। যে বেতন পেয়েছেন এতদিন, তা ফেরতেরও নির্দেশ দেওয়া হয় হাই কোর্টের তরফে। অঙ্কিতার ছেড়ে আসা পদেই ববিতাকে নিয়োগ করা হয়। এবং এতদিনের বঞ্চনার জেরে অঙ্কিতার ফেরত দেওয়া অর্থ ববিতাকে দেওয়ার কথাও জানায় আদালত। হাই কোর্টের নির্দেশে মন্ত্রীকন্যা অঙ্কিতা তাঁর ৪১ মাসের বেতন বাবদ সেই টাকা হাই কোর্টের রেজিস্ট্রারের কাছে জমা দিয়েছেন বলেও আদালতে জানান অঙ্কিতার আইনজীবী। তবে এ পর্যন্ত হাই কোর্টের নির্দেশ সত্ত্বেও ববিতা কোনও টাকা পাননি বলে বুধবার আদালতে জানিয়েছিলেন তাঁর আইনজীবী ফিরদৌস শামিম। বৃহস্পতিবার এই মামলার শুনানি ছিল আদালত।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: মন্ত্রিত্বের পর এবার তৃণমূলের সমস্ত পদও খোয়ালেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়, সিদ্ধান্ত দলের]

তবে এদিনই ববিতা প্রাপ্য টাকার একাংশ হাতে পেয়েছেন। তার অঙ্ক ৭ লক্ষ ৯৮ হাজারের বেশি। দ্বিতীয় কিস্তির টাকা তিনি কবে, কীভাবে পাবেন, তা হাই কোর্ট পরে জানাবে। এমনই জানালেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। ববিতার আশা, সেই টাকাও তিনি দ্রুতই হাতে পাবেন। 

Advertisement
Next