দীর্ঘ জটিলতার পর উচ্চপ্রাথমিকে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু, প্রকাশিত ইন্টারভিউয়ের বিজ্ঞপ্তি

09:30 PM Sep 30, 2022 |
Advertisement

স্টাফ রিপোর্টার: বহুদিনের প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে ফের শুরু হল স্কুলে উচ্চপ্রাথমিক স্তরে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের প্রক্রিয়া। নিয়োগের বেনিয়মের অভিযোগে চলা একটি মামলায় ইন্টারভিউয়ের জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত আরও ১,৫৮৫ জন প্রার্থীর ইন্টারভিউ নেওয়ার জন্য স্কুল সার্ভিস কমিশনকে (SSC) নির্দেশ দিল বিচারপতি সুব্রত তালুকদার ও বিচারপতি হিরণ্ময় ভট্টাচার্যর ডিভিশন বেঞ্চ।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

হাই কোর্টের অনুমতি মেলার ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই ইন্টারভিউয়ের বিজ্ঞপ্তি জারি করে দিল এসএসসি। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, অক্টোবরের তৃতীয় সপ্তাহে শুরু হবে ইন্টারভিউ প্রক্রিয়া। সংশ্লিষ্ট প্রার্থীরা আগামী ১৪ অক্টোবর থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন ইন্টারভিউয়ের ইন্টিমেশন লেটার।

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

[আরও পড়ুন: ‘স্যানিটারি ন্যাপকিন চেয়ে কোনও ভুল করিনি’, বিহারের ‘কন্ডোম’ বিতর্কে অনড় ছাত্রী]

গত মঙ্গলবারই শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর (Bratya Basu) পাশে বসে উচ্চপ্রাথমিকের নিয়োগ নিয়ে আশার বার্তা দিয়েছিলেন স্কুল সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান সিদ্ধার্থ মজুমদার। বলেছিলেন, ‘‘উচ্চপ্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের শেষ পর্যায়ের আগের পর্যায়ে ১৫৮৫ জনের ইন্টারভিউ বাকি রয়েছে। আশা করছি, পুজোর ছুটির আগে এই পদক্ষেপটা নেওয়ার জন্য হাই কোর্টের অনুমতি পাওয়া যাবে। আমি কথা দিচ্ছি, অনুমতি পেলে পুজোর ছুটির আগে, একেবারে শেষবেলায় পেলেও ইন্টারভিউ কবে থেকে শুরু করব, তা জানিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করে দেব।’’ যেমন কথা তেমনি কাজ।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

[আরও পড়ুন: পুজোয় স্বস্তিতে মানিক ভট্টাচার্য, রক্ষাকবচের মেয়াদ আরও বাড়িয়ে দিল সুপ্রিম কোর্ট]

শুক্রবার হাই কোর্ট ১৫৮৫ জন প্রার্থীর ইন্টারভিউ নেওয়ার নির্দেশ দিতেই বিজ্ঞপ্তি জারি করে দিল কমিশন। বিজ্ঞপ্তিতে ইন্টারভিউয়ের জন্য ডাক পাওয়া প্রার্থীদের প্রয়োজনীয় সব আসল নথি, সার্টিফিকেট ও সেগুলির ফটোকপিও করিয়ে আনতে বলা হয়েছে। আসল নথি যাচাইয়ের সময় কোনও রকম গরমিল ধরা পড়লে সংশ্লিষ্ট প্রার্থীর প্রার্থীপদ বাতিল করা হবে। কেউ আসল নথি না দেখাতে পারলে তাকে ইন্টারভিউয়ে অংশগ্রহণ করতে দেওয়া হবে না। নির্ধারিত দিন ও সময়ে ইন্টারভিউয়ে কোনও প্রার্থী উপস্থিত না হলে, তাকে অনুপস্থিত বলে গণ্য করা হবে এবং পুনরায় সুযোগ দেওয়া হবে না।

Advertisement
Next