রাজ্যের ২০ হাজার অস্থায়ী পদে নিয়োগেও দুর্নীতি! কলকাতা হাই কোর্টের দ্বারস্থ চাকরিপ্রার্থীরা

10:08 PM Jul 27, 2022 |
Advertisement

গোবিন্দ রায়: শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতির অভিযোগে তোলপাড় রাজ্য। দমকলে নিয়োগেও বেনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। এবার রাজ্যের বিভিন্ন দপ্তরে ডাটা এন্ট্রি অপারেট-সহ একাধিক অস্থায়ী পদে নিয়োগেও দুর্নীতির অভিযোগ উঠল। কলকাতা হাই কোর্টের (Calcutta High Court) দ্বারস্থ চাকরিপ্রার্থীরা। পালটা গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে মামলা খারিজের আরজি জানিয়েছে রাজ্য।

Advertisement

২০২১ সালে সাড়ে ৫ হাজার এবং ২০২২ সালে ১৫ হাজার ডাটা এন্ট্রি অপারেটর (Data Entry Operator)-সহ বিভিন্ন পদে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি করা করা হয়। বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল রাজ্য সরকারের তরফে দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থা। অভিযোগ, নিয়োগের ক্ষেত্রে কোনও নিয়মই মানেননি দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থা। এমনকী সুপ্রিম কোর্টের (Supreme Court) গাইডলাইনও মানা হয়নি বলে অভিযোগ দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসিন্দা সইফুদ্দিন-সহ ১১ জন চাকরিপ্রার্থীর। মামলাকারীদের আইনজীবী পঙ্কজ হালদার, তাপস মান্নার দাবি, গোটা নিয়োগ প্রক্রিয়াই বেআইনি। টাকার বিনিময়ে চাকরি দেওয়া হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: ৩৮ TMC বিধায়ক যোগাযোগ রাখছেন BJP’র সঙ্গে! ‘মিঠুন বলেছেন উনিই জানবেন’, দায় এড়ালেন শুভেন্দু]

আইনজীবীরা জানান, ২০২১ সালে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানানো হয় ২-৮ আগস্ট পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন নেওয়া হবে। আবেদন করার শেষ দিন থেকেই ইন্টারভিউ হবে। আইনজীবীদের প্রশ্ন, তাহলে আগে থেকেই প্যানেল তৈরি ছিল, নাহলে আবেদন শেষ হওয়ার আগেই কী করে ইন্টারভিউ শুরু হয়? এছাড়াও সুপ্রিম কোর্টের গাইডলাইন বলছে, নিয়োগের ক্ষেত্রে আগে লিখিত পরীক্ষা, নথি পরীক্ষা, তারপর ইন্টারভিউ। কিন্তু এখানে সরাসরি ইন্টারিউ হয় কীভাবে?

Advertising
Advertising

২০২২-এর জুলাই মাসেও একইভাবে বিজ্ঞপ্তি জারি হয়েছে। সেই নিয়োগ পক্রিয়ায় চলছে। ওই বিজ্ঞপ্তিকে চ্যালেঞ্জ করে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছেন চাকরিপ্রার্থীরা। এই আবেদনের ভিত্তিতে রাজ্যের দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থার জবাব তলব করেছে আদালত। তিন সপ্তাহের মধ্যে দিতে হবে হলফনামা। 

[আরও পড়ুন: ‘বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে ৩৮ তৃণমূল বিধায়ক’, বিস্ফোরক দাবি মিঠুনের]

Advertisement
Next