Advertisement

জন্মদিনে শ্রদ্ধার্ঘ, ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালের নাম নেতাজির নামে রাখতে পারেন মোদি

01:59 PM Jan 21, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এবার নেতাজির নামে পরিচিতি পেতে পারে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল। সব ঠিকঠাক থাকলে শীঘ্রই বদলে যেতে পারে শহরের অন্যতম আকর্ষণীয় এই পর্যটন কেন্দ্রের নাম। দেশপ্রেমী নেতাজিকে ১২৫ তম জন্মদিনে শ্রদ্ধা জানাতে এমনই চিন্তাভাবনা করছে কেন্দ্র।  

Advertisement

নেতাজিকে নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্য প্রতিযোগিতা অব্যাহত। ২৩ জানুয়ারি দিনটিকে ইতিমধ্যেই ‘দেশনায়ক দিবস’ হিসাবে উদযাপনের কথা ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার। তারপরই নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর (Netaji Subhas Chandra Bose) জন্মদিনকে ‘পরাক্রম দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রক। আর এবার শোনা যাচ্ছে, আরও একধাপ এগিয়ে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালের নামও বদলে দেওয়ার পথে হাঁটতে পারে কেন্দ্র। জন্মদিনেই এই বড় ঘোষণা করতে পারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি স্বয়ং।

১০০ বছরে পা দিয়েছে কলকাতার ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল। আর এই বছরই নামবদল ঘটতে পারে ব্রিটিশ আমলে তৈরি এই স্মৃতি সৌধের। সারা বছর ধরে নেতাজির ১২৫তম জন্মবার্ষিকী পালনের জন্য কেন্দ্রের তরফ থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। তাতে বসু পরিবারের সদস্যদের পাশাপাশি নেতাজিকন্যা অনিতা বসু পাফকেও রাখা হয়েছে। সেই কমিটিই সিদ্ধান্ত নেবে, এই স্মৃতি সৌধের নাম পরিবর্তন হবে কি না। পাশাপাশি ২৩ জানুয়ারি দিনটিকে জাতীয় ছুটি হিসেবে ঘোষণা করা হবে কি না, সে সিদ্ধান্তও নেবে কমিটিই। 

[আরও পড়ুন: জন্ম থেকেই বিরল রোগে আক্রান্ত সদ্যোজাত, কোলের সন্তানকে গবেষণার স্বার্থে দান করবেন দম্পতি]

সম্প্রতি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রহ্লাদ সিং প্যাটেল জানান, ২৩ জানুয়ারি পরাক্রম দিবসের মূল অনুষ্ঠানের আয়োজন হচ্ছে কলকাতার ভিক্টোরিয়া হলে। যার উদ্বোধনে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Modi)। আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও। অর্থাৎ শনিবার একই মঞ্চে দেখা যাওয়ার কথা মোদি ও মমতাকে।

এদিকে,  সেদিনই নেতাজির স্মরণে পদযাত্রায় অংশ নেবেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এর আগে দিনটিকে জাতীয় ছুটি হিসেবে ঘোষণার পক্ষে সওয়াল করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। সেই সঙ্গে স্বাধীন ভারতে নেতাজির আজও যথাযথ মূল্যায়ন হয়নি বলেও কটাক্ষ করেছিলেন তিনি।

[আরও পড়ুন: ‘আমরা জানি কীভাবে শান্তিপূর্ণ ভোট করাতে হয়’, রাজ্যে পা রেখেই বার্তা নির্বাচন কমিশনারের]

Advertisement
Next