গার্ডেনরিচে টাকা উদ্ধার কাণ্ড: আমিরের সঙ্গী শুভজিৎ শ্রীমানির বিরুদ্ধে লুক আউট নোটিস জারি

04:59 PM Oct 01, 2022 |
Advertisement

অর্ণব আইচ: গার্ডেনরিচের ব্যবসায়ী আমির খানের (Amir Khan) সঙ্গীর বিরুদ্ধে লুক আউট নোটিস জারি করল কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দারা। মনে করা হচ্ছে, আরবের কোনও দেশ কিংবা মালয়েশিয়ায় গা ঢাকা দিয়ে প্রতারণা চক্র চালাচ্ছে আমির সঙ্গী শুভজিৎ শ্রীমানি। ই নাগেটস কাণ্ডের তদন্ত নেমে শুভজিতের হদিশ পায় পুলিশ। তারপর থেকেই শুভজিতের খোঁজ শুরু করেছে কলকাতা পুলিশ।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

সূত্রের খবর, শুভজিৎ শ্রীমানির খোঁজে ইন্টারপোলের দ্বারস্থ হতে চায় কলকাতা পুলিশ (Kolkata Police)। তার আগে লুক আউট নোটিস জারি করা হল। প্রাথমিকভাবে মনে করা হয়েছিল, দেশের কোথাও লুকিয়ে আছে শুভজিৎ। কিন্তু পরে স্পষ্ট হয় যে আমির খানের সঙ্গী বিদেশে বসে পুরো বিষয়টি পরিচালনা করছিল। যাতে গোপন ডেরা থেকে অন্য কোথাও পালাতে না পারে বা দেশের বিমানবন্দরে ঢুকতে না পারে তাই এই নোটিস জারি করা হল।

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

[আরও পড়ুন: ‘বাংলা দুর্নীতিমুক্ত হোক’, EZCC’র পুজো উদ্বোধন করে প্রার্থনা সুকান্ত মজুমদারের]

গার্ডেনরিচের ব্যবসায়ীর নিসার খানের বাড়ি থেকে ১৭ কোটি টাকা উদ্ধারের ঘটনায় কলকাতা পুলিশ তদন্ত করছে। তদন্তে নেমে তারা ২৫০টি অ্যাকাউন্টের হদিশ পায়। এর মধ্যে ২৭টি সন্দেহভাজন অ্যাকাউন্টের খোঁজ মেলে। যেখানে বেশি পরিমাণ টাকা লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে অ্যাকাউন্ট খুলতেই চক্ষু চড়কগাছ। 

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

জানা যায়, আমিরের একাধিক অফিস রয়েছে শহরের বিভিন্ন প্রান্তে। তাঁকে জেরা করে সল্টলেকের অফিসের খোঁজ পায় পুলিশ। সেখানে হানা দিতেই চক্ষু ছানাবড়া দুঁদে পুলিশকর্তাদের। দেখা যায়, বাইরে থেকে অফিস বন্ধ। কোনও কর্মী নেই। কিন্তু ভিতরে চলছে কল সেন্টার। নিজে থেকে চালু-বন্ধ হচ্ছে সমস্ত মেশিন, সার্ভার। স্বয়ংস্ক্রিয়ভাবে কাজ হয়ে যাচ্ছে। অর্থাৎ রিমোটের মাধ্যমে আরব থেকে সমস্তটা পরিচালনা করা হচ্ছে। উঠে আসে আমিরের সঙ্গী শুভজিৎ শ্রীমানির নাম। 

[আরও পড়ুন: ষষ্ঠীতেই বোধন, দেশে 5G পরিষেবার সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি]

Advertisement
Next