স্বাধীনতার হীরক জয়ন্তীতে উপহার, এবার ক্যানসার-সহ ৭০ ধরনের চিকিৎসা মিলবে স্বাস্থ্যসাথীতে

11:31 AM Aug 16, 2022 |
Advertisement

ক্ষীরোদ ভট্টাচার্য: স্বাধীনতার হীরক জয়ন্তীতে রাজ‌্যবাসীকে প্রশাসনের উপহার। মারণ ক‌্যানসার-সহ ৭০ ধরনের চিকিৎসার সুযোগ মিলবে স্বাস্থ‌্যসাথী প্রকল্পে।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

রাজ্যের অন্তত সাড়ে দশলক্ষ নাগরিক স্বাস্থ‌্যসাথী প্রকল্পের অন্তর্ভূক্ত। এই প্রকল্প থেকে সরকারি বেসরকারি হাসপাতাল থেকে মাসে অন্তত এক হাজার মানুষ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে যান। অন্তত দু’হাজার রোগের চিকিৎসা হয় স্বাস্থ‌্যসাথী প্রকল্পের আওতায়। কিন্তু আর কত ধরনের রোগের চিকিৎসা সম্ভব এমন জনমুখী প্রকল্প থেকে তা খতিয়ে দেখতে সম্প্রতি স্বাস্থ‌্যসাথীর টাস্ক ফোর্স আলোচনায় বসে। সেখানেই ঠিক হয় এবার থেকে ক‌্যানসারের জন‌্য তীব্র ব‌্যথার উপশমের চিকিৎসা-সহ আরও ব‌্যথা উপশমকারী চিকিৎসার সুযোগ মিলবে স্বাস্থ‌্যসাথী প্রকল্প থেকে।

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

[আরও পড়ুন: স্বাধীনতা দিবসে প্রেসিডেন্সি সংশোধনাগারে শশী পাঁজা-মালা রায়, দেখা হল না পার্থর সঙ্গে!]

বিশেষজ্ঞদের অভিমত, স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে রাজ‌্যবাসীকে একটি বড় সামাজিক উপহার দিলেন মুখ‌্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বস্তুত, এখন থেকে স্বাস্থ‌্যসাথী প্রকল্পে নিখরচায় আরও ৭০ ধরনের চিকিৎসার সুযোগ পাবেন রাজ্যের অগণিত নাগরিক। স্বাস্থ‌্য দপ্তরের শীর্ষকর্তাদের বক্তব‌্য, এখনও পর্যন্ত দেশের কোনও রাজ‌্য প্রশাসন নাগরিকদের নিখরচায় ব‌্যথা উপশমের চিকিৎসার ব‌্যবস্থা করেনি। সেদিক দিয়ে পথ দেখাল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। স্বাস্থ‌্য দপ্তর সূত্রে খবর, এখন থেকে যেসব চিকিৎসার সুযোগ মিলবে স্বাস্থ‌্যসাথী প্রকল্পে তারমধ্যে থাকছে রেডিওফ্রিকোয়েন্সি, অ‌্যাবোলেশন, রেডিওফ্রিকোয়েন্সি অ‌্যাবোলেশন ফর ফ‌্যাসেট জয়েন্টস, ইউএসজি গাইডেড পেরিফেরাল নার্ভ ব্লক-সহ অসংখ‌্য জরুরি চিকিৎসা পরিষেবা।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

ব‌্যথার বিভিন্ন চিকিৎসার রকমভেদে ৮ থেকে ৬৫ হাজার টাকা পর্যন্ত চিকিৎসার খরচ বহনের সুবিধা দেওয়া হয়েছে স্বাস্থ‌্যসাথী প্রকল্পে। স্বাস্থ‌্যসাথী প্রকল্পে ক‌্যানসারের ব‌্যথা নিরাময়কে যুক্ত করায় উচ্ছ্বসিত অঙ্কোলজিস্ট ও ব‌্যথা নিরাময়কারী চিকিৎসকরা। তাঁদের অভিমত, এই সিদ্ধান্তের ফলে সবচেয়ে উপকৃত হবেন ক‌্যানসার আক্রান্তরা। এমনিতেই ক‌্যানসারের চিকিৎসা অত‌্যন্ত ব‌্যয়বহুল। সঙ্গে ভয়াবহ যন্ত্রণা। সেই যন্ত্রণা নিরসনের জন‌্য গরিব ও মধ‌্যবিত্ত মানুষকে আরও অতিরিক্ত খরচ করতে হয়। চিকিৎসকদের অভিমত, ব‌্যথায় ভোগা নাগরিকদের প্রায় ৪৫ শতাংশই কোনও না কোনও ক‌্যানসারে আক্রান্ত।

[আরও পড়ুন: খেলা হবে দিবসে টুইটে শুভেচ্ছাবার্তা মুখ্যমন্ত্রীর, দিনভর একাধিক কর্মসূচি তৃণমূলের]

আবার এমনও দেখা গেছে, অনেকে জানেনই না যে তিনি মারণ ক‌্যানসারে ভুগছেন। ব‌্যথার চিকিৎসা করাতে এসে জানা গেল, তিনি ক‌্যানসারে আক্রান্ত। সেই সময়ে ওই ব‌্যক্তি বা পরিবারের কাছে স্বাস্থ‌্যসাথী প্রকল্পের কার্ড থাকা মানে নিশ্চিন্তে চিকিৎসা চালানো। বস্তুত, উপকৃত হবেন তাঁরা।

Advertisement
Next