‘দুর্নীতিকে সাপোর্ট করি না, তবে ভুল করাটাও অধিকার, পার্থর গ্রেপ্তারিতে মন্তব্য মমতার

07:36 PM Jul 25, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: SSC নিয়োগ দুর্নীতি মামলা নিয়ে তোলপাড় রাজ্য। শিক্ষা ব্যবস্থায় স্বচ্ছতা নিয়ে বড়সড় প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। কোটি কোটি টাকা দুর্নীতির অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তৎকালীন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে (Partha Chatterjee)। এমন পরিস্থিতিতে এই প্রথমবার প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রীর গ্রেপ্তারির পর এ প্রসঙ্গে মুখ খুললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার ‘বঙ্গসম্মানে’র মঞ্চ থেকে মুখ্যমন্ত্রী (Mamata Banerjee) বলেন, “সারা জীবন রাজনীতি করেছি ভোগ করার জন্য নয়। ত্যাগের জন্য।” সেই সঙ্গে এসএসসি চাকরিপ্রার্থীদের বঞ্চনায় দুঃখও প্রকাশ করেন তিনি।

Advertisement

সোমবার নজরুল মঞ্চে বঙ্গসম্মানের মঞ্চে নিজের তথা দলের অবস্থান স্পষ্ট করেন মুখ্যমন্ত্রী। জানিয়ে দেন, মন্ত্রীরা দুর্নীতি করলেও রেয়াত করা হবে না। তাঁর কথায়, ”দুর্নীতিকে সাপোর্ট করা আমার নেশা বা পেশা নয়। আমি ১ লক্ষ টাকা করে পেনশন পাই। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবেও বেতন পেতে পারি। কিন্তু ১ পয়সাও নিই না। আমার আয় হয় বই লিখে, গান লিখে। তবে ক্লাসের সব স্টুডেন্ট একরকম হয় না। পার্থক্য থাকে। কেউ কখনও কখনও ভুল করতেই পারে। কেউ জ্ঞানত ভুল করে কেউ না জেনে। কিন্তু মনে রাখবেন, ভুল করাটাও একটা অধিকার।” 

[আরও পড়ুন: নিয়োগ দুর্নীতি: পার্থর দেহরক্ষীর পরিবারের ১০ চাকরি প্রাপককে মামলায় অন্তর্ভুক্ত করার নির্দেশ]

অর্থাৎ ভুল, অন্যায় যে কোথাও একটা হয়েছে, তা মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য থেকে স্পষ্ট। সংশোধনের কথাও বলেন তিনি। তাঁর কথায়, ”সবাই সাধু নয়। আমি যদি না জেনে ভুল করি, ক্ষমা চাইব। জেনেশুনে আমি কখনও কোনও অন্যায় করিনি। রাজনীতি স্রেফ সুবিধার জন্য নয়, কাজের জন্য।” অর্থাৎ এসএসসি নিয়োগ নিয়ে দুর্নীতিতে যাঁরা আদালতের বিচারে দোষী সাব্যস্ত হবেন, তাঁদের কারও পাশে নেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার, তা বুঝিয়ে দিলেন। মন্ত্রীদেরও যে রেয়াত করা হবে না, কড়াভাবে দিলেন সেই বার্তাও।  এও বোঝালেন, দলের কারও জন্য তাঁর নিজের ভাবমূর্তি নষ্ট হওয়ার বিন্দুমাত্র আশঙ্কা দেখলে তিনি তা অঙ্কুরেই বিনাশ করবেন। 

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের একাধিক শারীরিক সমস্যা থাকলেও ভরতির প্রয়োজন নেই, জানাল AIIMS]

এরপরই পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে চিকিৎসার জন্য ওড়িশার এইমসে নিয়ে যাওয়ায় কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন মমতা। বলে দেন, দেশের অন্যতম সেরা হাসপাতাল এসএসকেএম। এছাড়াও সরকারি, বেসরকারি অনেক হাসপাতাল আছে বাংলায়। সেখানে চিকিৎসার জন্য পার্থকে ওড়িশায় নিয়ে যাওয়ায় তিনি বিরক্ত। প্রশ্ন তোলেন, সেখানে কেন্দ্রের ছোঁয়া আছে বলেই কি পার্থকে নিয়ে যাওয়া হল?

মুখ্যমন্ত্রীর এই বক্তব্যের ঠিক পরেই সাংবাদিকদের মুখোমুখি (Mamata Banerjee) হন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। মুখ্যমন্ত্রীকে পালটা দিয়ে তাঁর দাবি, ”যেভাবে বঙ্গসম্মান প্রদানের মঞ্চ থেকে পার্থ চট্টোপাধ্য়ায় ও  এসএসসি দুর্নীতির পাশে দাঁড়ালেন, তা নিন্দনীয়। উনি এসএসসি আন্দোলনকে, চাকরিপ্রার্থীদের লড়াইকে অপমান করেছেন। বিরোধীদের উপর দোষ চাপানোর চেষ্টা করছেন, কিন্তু তা একেবারেই নিজের ইমেজ রক্ষা করতে।”

Advertisement
Next