জামিনের আবেদনই করলেন না পার্থ! ফের ১৪ দিনের জেল হেফাজতে প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী

07:33 PM Oct 05, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এসএসসি দুর্নীতি (SSC Scam) মামলায় চাঞ্চল্যকর মোড়। বুধবার অর্থাৎ দশমীর দিন আলিপুরের বিশেষ আদালতে জামিনের আবেদনই করলেন না রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। ফলে আগামী ১৪ দিনের জন্য তাঁকে ফের জেল হেফাজতে পাঠাল বিশেষ আদালত। ১৯ অক্টোবর পর্যন্ত জেল হেফাজতেই থাকতে হবে প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রীকে। একই সঙ্গে এসএসসি মামলায় অভিযুক্ত শান্তিপ্রসাদ সিনহা (SP Sinha), কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায় এবং অশোক কুমার সাহাকেও ১৪ দিনের জেল হেফাজতে পাঠিয়েছে আদালত।

Advertisement

পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chatterjee) এর আগে যতবার আদালতে বক্তব্য রাখার সুযোগ পেয়েছেন, প্রতিবারই জামিনের আবেদন করেছেন। জামিনের আরজি জানিয়ে একাধিকবার চোখের জলও ফেলেছেন তিনি। কখনও দিয়েছেন শারীরিক অসুস্থতার তত্ত্ব। এমনকী প্রয়োজন পড়লে গৃহবন্দি থাকতেও রাজি ছিলেন পার্থ। কোনও কিছুতেই কাজ হয়নি। কিন্তু বুধবার দশমীর দিন চমকপ্রদভাবে পার্থ জামিনের আবেদনই করলেন না। তাহলে তিনি কি হতাশ হয়ে জামিনের আশা ছেড়ে দিলেন? উঠছে প্রশ্ন।

[আরও পড়ুন: দশেরায় শোকের ছায়া উত্তরাখণ্ডে, বিয়েবাড়ির বাস খাদে পড়ে মৃত ২৫]

উল্লেখ্য, এসএসসি গ্রুপ সি নিয়োগ মামলায় সদ্যই চার্জশিট পেশ করেছে সিবিআই। তাতে গোটা ঘটনার কেন্দ্রে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কেই দেখানো হয়েছে। ওই চার্জশিটে নাম রয়েছে এসপি সিনহা, কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়, অশোক সাহা-সহ মোট ১৬ জনের। ছয় নম্বরে রয়েছেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। চার্জশিটে উল্লেখ করা হয়েছে, এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি বৃহত্তর ষড়যন্ত্র। রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং এসপি সিনহাকে অন্যতম মাস্টারমাইন্ড হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে। চার্জশিটে মামলার মূল হোতা হিসাবে চিহ্নিত হওয়ার পরই পার্থর জামিনের আবেদন না করাটা বেশ তাৎপর্যপূর্ণ। ইডি (ED) হেফাজত, জেল হেফাজত এবং সিবিআই (CBI) হেফাজতের পর এবার ফের জেল হেফাজতে থাকতে হবে পার্থকে।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্ত ডোনা, কলকাতার বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি সৌরভপত্নী]

তবে পার্থ জামিনের আবেদন না করলেও শান্তিপ্রসাদ সিনহা, কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায় এবং অশোক কুমার সাহারা এদিন জামিনের আবেদন করেছিলেন। তাঁদের কারও আবেদনই মঞ্জুর করেনি আদালত। প্রত্যেকেরই ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তাঁরাও জেলেই থাকবে।

Advertisement
Next