৮৯ বছরেও চূড়ান্ত স্বামীর শারীরিক চাহিদা, যৌনতার নামে অত্যাচার, ৮৭-র স্ত্রীর ফোন পুলিশে

09:30 PM Sep 13, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রকৃতির নিয়মকেই বুঝি বদল দিলেন এই বৃদ্ধ! সাধারণত ৬০ বা ৭০-এর পরে যৌন চাহিদা কমে পুরুষ শরীরে। কিন্তু গুজরাটে (Gujarat) ৮৯ বছরের এই বৃদ্ধর যৌন চাহিদা বেড়েই চলেছে! তাঁর মাত্রাছাড়া যৌন খিদের চোটে নাজেহাল স্ত্রী। পরিস্থিতি এমনই যে স্বামীর অত্যাচার থেকে মুক্তি পেতে পুলিশের হেল্পলাইন নম্বরে ফোন করেন মহিলা।

Advertisement

গুজরাটের ভদোদরার সায়াজিগঞ্জের বাসিন্দা ওই বৃদ্ধা। রাজ্যের মহিলাদের জন্য পুলিশের ‘অভয়ম ১৮১’ নম্বরে ফোন করার পরেই ঘটনাটি সামনে আসে। ফোন করে নিজের স্বামীর বেপরোয়া শারীরিক চাহিদার কথা জানান বৃদ্ধা। প্রথমে ৮৭ বছরের বৃদ্ধার কথা শুনে অবাক হন ফোনের ওপারে থাকা বিশেষজ্ঞ দল। তাঁরা বিশ্বাস করতে পারছিলেন না এই নালিশ। কিন্তু বৃদ্ধা জানান স্বামীর অত্যাচারে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। লাগাতার সঙ্গম চান স্বামী। মুক্তির উপায় বাৎলে দিতে বলেন।

[আরও পড়ুন: উত্তরপ্রদেশের আকাশে UFO? সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল রহস্যময় আলোর ভিডিও ও ছবি]

জানা গিয়েছে, ফোন পেয়ে প্রবীণ দম্পতির বাড়িতে যান বিশেষজ্ঞ দল। তখনই জানা যায়, বৃদ্ধের লাগাম ছাড়া শারীরিক চাহিদার কারণে ইদানীংকালে তাঁদের সম্পর্কে প্রভাব পড়ছে। এক বছর আগে সাংঘাতিক অসুস্থ হয়ে পড়েন বৃদ্ধা। এতটাই দুর্বল হন যে বিছানা থেকে ওঠার ক্ষমতা ছিল না। এরপর থেকে দৈনন্দিন কাজ করতে ছেলের বউয়ের সাহায্য নিতে হয় তাঁকে। এমন অবস্থায় স্বামীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের শক্তি নেই শরীরে। যদিও অবসরপ্রাপ্ত ইঞ্জিনিয়ার স্বামী তা শুনতে চান না বলে অভিযোগ করেছেন স্ত্রী।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: জামিন পেয়েও মিলল না মুক্তি, আপাতত জেলেই সাংবাদিক সিদ্দিক কাপ্পান]

বৃদ্ধার দাবি, যৌন সংসর্গে রাজি না হলে বৃদ্ধ চেঁচিয়ে পাড়া মাথায় করেন। লোকলজ্জার ধার ধারেন না। এই অবস্থায় তিনি হেল্পলাইন নম্বরে ফোন করেছিলেন। বিশেষজ্ঞরা বৃদ্ধর সঙ্গে কথা বলেন। তাঁকে যৌন চাহিদা নিয়ন্ত্রণে বেশ কিছু পরামর্শ দেন। বৃদ্ধকে যোগ ব্যায়াম ও ধ্যান করতে বলা হয়। বিভিন্ন ধর্মীয় স্থান পরিদর্শন এবং পার্কে প্রবীণ নাগরিকদের সঙ্গে সময় কাটানোর পরামর্শও দেওয়া হয়। জানা গিয়েছে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ কাজে দিয়েছে। আপাতত নাকি ৮৯ বছরের স্বামীর অত্যাচারে নাজেহাল হতে হচ্ছে না ৮৭ বছরের বৃদ্ধাকে।

Advertisement
Next