Advertisement

ভারত থেকে ব্যবসা গোটাচ্ছে Tiktok, কর্মহারা অন্তত আড়াই হাজার

05:03 PM Jan 27, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতে চিরকালের জন্য বন্ধ হচ্ছে টিকটক-সহ ৫৯টি চিনা অ্যাপ। আর কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের জেরে কাজহারা হচ্ছে ২ হাজারেরও বেশি যুবক-যুবতী। বুধবারই কর্মীদের ইস্তফা দেওয়ার কথা জানিয়ে দিয়েছে TikTok-এর মাদার সংস্থা বাইটডান্স (Bytedance)।

Advertisement

বাইটডান্সের একাধিক অ্যাপ রয়েছে ভারতে। তবে এবার এই দেশ থেকে ব্যবসা গোটানোর পথে হাঁটছে চিনা সংস্থাটি। টিকটক, হ্যালো-সহ বহু বিভিন্ন অ্যাপে কর্মরত ভারতীয়র সংখ্যা দু’হাজারেরও বেশি। এবার প্রায় সকলকেই ছেঁটে ফেলছে সংস্থাটি। ফলে কাজ হারাতে চলেছে ২ হাজারের বেশি যুবক-যুবতী। এদিন সকালে বাইটডান্সের অন্তবর্তী সিইও ভেনেসা পাপ্পাস এবং ভিপি ব্লেক শ্যান্ডলে জানান, “আপ্রাণ চেষ্টা করেছিলাম যাতে এ দেশের আইন-কানুন মেনে আমরা কাজ করতে পারি। গত সাত মাস যাবৎ প্রশাসনের সমস্ত অভিযোগের সঠিক জবাব দেওয়ার চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু তারপরেও আমরা কাজ শুরুর ছাড়পত্র পেলাম না। কবে আবার এই অ্যাপ ভারতে ফিরবে তা স্পষ্ট নয়। এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। এরপর তাঁরা আরও জানান, “গত ৬ মাস ধরে দু’হাজারের বেশি কর্মীদের পাশে ছিল সংস্থা। কিন্তু এবার সংস্থার খরচ কমাতেই হবে। তবে টিকটককে ফের বাজারে ফেরানো চেষ্টা করব।”

[আরও পড়ুন : প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে প্লে স্টোরে FAU-G, প্রথম পর্বের ভিডিও পোস্ট করলেন অক্ষয়]

দিন কয়েক আগেই কেন্দ্র জানিয়েছিল চিনা অ্যাপ টিকটক, হ্যালোর জবাবে তারা সন্তুষ্ট নয়। ফলে চিরতরে ব্যান হবে অ্যাপগুলি। এই খবর প্রকাশ্যে আসার পরই মাথায় হাত পড়ে কর্মীদের। এদিন সকালে সংস্থার তরফে অফিসিয়ালভাবে জানিয়ে দেওয়া হল। এদিকে এই ৫৯টি অ্যাপ নিষিদ্ধ করা নিয়ে ক্ষুব্ধ চিন। বেজিং-এর তরফে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, “ভারতের এই পদক্ষেপ বিশ্ব বাণিজ্য চুক্তিকে লঙ্ঘন করছে। চিনের সংস্থাগুলিও ধাক্কা খাবে।”

[আরও পড়ুন : জবাবে সন্তুষ্ট নয় কেন্দ্র, চিরতরে বন্ধ হতে পারে TikTok-সহ ৫৯টি অ্যাপ]

উল্লেখ্য, বিভিন্ন নিরাপত্তা সংস্থাগুলি অভিযোগ করেছিল, একাধিক অ্যাপ ভারতীয়দের তথ্য চুরি করছে। এরপরই  ৫৯টি অ্যাপ (App) নিষিদ্ধ করেছিল মোদি-সরকার। একইসঙ্গে  অ্যাপগুলিকে নোটিস ধরিয়েছিল কেন্দ্র। তৈরি হয়েছিল প্রশ্নমালা। সরকার জানিয়েছিল, ৭৯টি প্রশ্নের জবাবে সরকার সন্তুষ্ট হলে অ্যাপগুলিকে ছাড়পত্র দেওয়া হবে। কিন্তু সেই প্রশ্নের জবাবে সন্তুষ্ট নয় কেন্দ্র। ফলে এবার চিরতরে বন্ধ হতে চলেছে অ্যাপগুলি। ফলস্বরূপ কর্মহারা হবে দেশেরই আড়াই হাজার যুবক-যুবতী। 

Advertisement
Next