হাতির সঙ্গে ফটোশুট নবদম্পতির, তখনই মেজাজ বিগড়াল গজরাজের, তারপর?

09:14 PM Dec 01, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বন্যেরা বনে সুন্দর, মন্দিরে নয়। টের পেলেন ভক্তেরা। এক মাহুতের তো প্রাণ যাওয়ার জোগাড় হয়েছিল। পেশাদার ফটোগ্রাফারকে দিয়ে ছবি তোলা মাথায় ওঠে সদ্য বিবাহিতা দম্পতির। আসলে আচমকা মেজাজ বিগড়ায় বিরাট গজরাজের। তারপর সব লণ্ডভণ্ড। ভয়ংকর সেই কাণ্ডের ভিডিও সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায় (Social Media)। ঘটনার পাশাপাশি নিজেদের অভিজ্ঞতার কথাও ভিডিওতে জানিয়েছেন দম্পতি। ঠিক কী ঘটেছিল?

Advertisement

গত ১০ নভেম্বরে কেরলের (Kerala) ত্রিচুরের (Thrissur) গুরুভায়ুর মন্দিরের (Guruvayur temple) ভিতরে ঘটে ঘটনাটি। মন্দিরে তখন দর্শনার্থীদের ভিড়। সদ্য বিবাহিত তরুণ-তরুণী ফটোগ্রাফারকে নিয়ে সেখানে যান। পুজোআচ্চার পর মন্দিরেরই একটি হাতির সামনে দাঁড়িয়ে ফটোশ্যুট চলছিল দম্পতির। সবে হাতির সামনে হাসি মুখে পোজ দিচ্ছিলেন দম্পতি তখনই ভয়ংকর কাণ্ড ঘটে। আচমকা ক্ষেপে যায় গজরাজ। সে নিচে দাঁড়ানো এক মাহুতকে সুরে পেঁচিয়ে আক্রমণ করে। ওই ব্যক্তি কোনওরকম হাতির সুর থেকে ছাড়া পান। যদিও তাঁর জামা ছিঁড়ে যায়।

[আরও পড়ুন: ভরা বিয়েবাড়িতে অতিথিদের সামনেই বরের চুমু! থানায় নালিশ কনের, বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত]

গোটা ঘটনার সময় আরেক জন মাহুত হাতির পিঠে থাকলেও বন্যপ্রাণীটিকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনি তিনি। পরে অবশ্য গজরাজকে সামলে ওঠে মাহুত। ততক্ষণে হুলস্থূল পড়ে গিয়েছে মন্দির চত্বরে। আতঙ্কে অনেকেই মন্দির ছেড়েছেন। এই ঘটনার ভিডিও ইনস্টাগ্রামে (Instagram) শেয়ার করেন দম্পতির পেশাদার ফটোগ্রাপার ‘ওয়েডিং মজিতো’। আচমকা হাতির হামলার অভিজ্ঞতার কথাও জানান নব বিবাহিতা তরুণ ও তরুণী। ভাইরাল হয় গোটা ভিডিও। ইনস্টাগ্রামের ওই ভিডিওতে এখনও অবধি ১ হাজার ২২৭ জন লাইক করেছে।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: বেঙ্গালুরুতে ঘড়ি হারালেন ডেনমার্কের ব্যক্তি, ফেরতও পেলেন একদিনের মধ্যেই, জানেন কীভাবে?]

উল্লেখ্য, বিয়ের পর গুরুভায়ুর মন্দিরে প্রণাম করতে যাওয়া কেরালার ওই অঞ্চলে রীতি রয়েছে। তবে তা করতে গিয়ে যে অভিজ্ঞতা হল তা ভয়ংকর বলেই মনে করছেন নেটিজেনরা। ক’দিন আগে কেরলে হাতির হামলায় পঞ্চাশ বছর বয়সি এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছিল। একা জঙ্গলের ভেতরের রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় তিনটি বুনো হাতি হামলা চালায় ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তাঁর।

Advertisement
Next