Advertisement

পুজোর আগেই হাতে আসছে অনুদান, উদ্যোক্তাদের আর্থিক সাহায্যের অনুমোদন দিল রাজ্য সরকার

02:09 PM Oct 05, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ব্যুরো: দুর্গাপুজো (Durga Puja) শুরুর আগেই হাতে এল অনুদান। রাজ্যের মোট ৪০ হাজার ৩৮২ পুজোকে অনুদানের জন্য ২০১.৯১ কোটি টাকার বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। এর মধ্যে কলকাতা পুলিশের এলাকায় হয় ৩ হাজারটি পুজো। অনুদান দেওয়া হয়েছে সেই ক্লাবগুলিকেও। দ্রুতই হাতে টাকা চলে আসবে। গত কয়েকবছর ধরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) উদ্যোগে ক্লাবগুলিকে অনুদান দেওয়া হচ্ছে। সেই অনুদানের পরিমাণ ক্লাব পিছু ৫০ হাজার টাকা। স্বভাবতই খুশি উদ্যোক্তারা।

Advertisement

গত বছরের মতো এবছরও কলকাতা হাই কোর্টের (Calcutta HC) বেঁধে দেওয়া গাইডলাইন মেনে হবে শারদীয়া উদযাপন। কোভিডবিধি মেনে পুজোর আয়োজন করছেন সব পুজো উদ্যোক্তারাই। এবারও মণ্ডপ হবে দর্শকশূন্য। স্রেফ উদ্যোক্তারাই মণ্ডপে ঢুকে পুজোর কাজে হাত লাগাতে পারবেন। সর্বত্র সেই নিয়ম মেনে পুজোর আয়োজন হচ্ছে কি না, তা খতিয়ে দেখতে সপ্তাহের শুরুতেই মণ্ডপ পরিদর্শনে বেরলেন কলকাতার পুলিশ সুপার (Kolkata CP) সৌমেন মিত্র। সকালে কয়েকঘণ্টার মধ্যে ৮টি বড় পুজোমণ্ডপ ঘুরে দেখলেন তিনি। অন্যদিকে, বিধাননগর (Bidhannagar) এলাকার বড় পুজো প্যান্ডেলগুলির প্রস্তুতি খতিয়ে দেখলেন পুলিশ কমিশনার সুপ্রতিম সরকার।

[আরও পডুন: বাড়তি ভাড়া নেওয়ায় ২৫ রুটের বাসকে শোকজ, ফের ধরা পড়লে বাতিল হবে পারমিট]

বুধবার মহালয়া। অর্থাৎ দেবীপক্ষের সূচনা। শহর কলকাতায় মহালয়ার পর থেকেই প্রায় পুজো উদযাপন শুরু হয়ে যায়। তাই চলতি সপ্তাহের প্রথম থেকেই কলকাতা পুলিশ পরিদর্শন শুরু করেছে। সোমবার যুগ্ম কমিশনার (সদর) ডিসি ও কয়েকটি থানার ওসিদের সঙ্গে নিয়ে প্রাথমিকভাবে ঘুরে দেখেছেন কয়েকটি পুজোমণ্ডপ। মূলত জোর দেওয়া হয়েছে মণ্ডপ নির্মাণের দিকে। তিনদিক খোলা রেখে তা তৈরি হচ্ছে কি না, বিদ্যুৎ ব্যবস্থা পর্যাপ্ত রয়েছে কি না, স্বাস্থ্যবিধি মেনে পুজোর আয়োজন হচ্ছে কি না, এসবই মূলত দেখা হয়েছে।

এরপর মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ মণ্ডপ পরিদর্শনে বেরন কলকাতার পুলিশ কমিশনার সৌমেন মিত্র। তিনি গড়িয়াহাটের একডালিয়া এভারগ্রিনের পরিদর্শন শুরু করেন। এরপর একে একে কলকাতার ৭টি বড় পুজো মণ্ডপ ঘুরে দেখেছেন। দেশপ্রিয় পার্ক, চেতলা অগ্রণী, সুরুচি সংঘ, নাকতলা উদয়ন সংঘে গিয়ে নিজে প্রস্তুতি খতিয়ে দেখেন সিপি। উল্লেখ্য, চেতলা অগ্রণীর পুজোতেই মহালয়ার দিন প্রতিমার চক্ষুদানের পর তা উদ্বোধন করে দেওয়ার কথা মুখ্যমন্ত্রীর। তাই এই পুজোর নিরাপত্তাও পুলিশের বিশেষ নজরে রয়েছে।

[আরও পডুন: বিধায়ক পদে মমতার শপথ নিয়েও রাজ্যের সঙ্গে কোন্দলে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়]

অন্যদিকে, বিধাননগর-দমদম এলাকাতেও বেশ কয়েকটি নামী সংস্থার উদ্যোগে দুর্গাপুজো হয়। বিধাননগরের পুলিশ সুপার সুপ্রতিম সরকার নিজে মঙ্গলবার বেরিয়ে সেখানকার মণ্ডপগুলি ঘুরে দেখেন। দমদম পার্ক ভারতচক্রের মণ্ডপ পরিদর্শন করেন। প্রয়োজনীয় নির্দেশও দেন। এরপর শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাব-সহ মোট ৪টি মণ্ডপ ঘুরে দেখেন। সিপি সুপ্রতীম সরকার জানিয়েছেন, “দর্শনার্থীদের প্রবেশপথ এবং বেরনোর রাস্তা-সহ বাকি নিয়মাবলি আমি খতিয়ে দেখেছি।”

Advertisement
Next