Omicron: ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা টেস্ট সিরিজে ওমিক্রনের থাবা! প্রথম টেস্ট হবে দর্শকশূন্যভাবে

12:22 PM Dec 20, 2021 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ শুরু হতে আর দিন সাতেক বাকি। তার আগে করোনা (Coronavirus) প্রবলভাবে হানা দিল দক্ষিণ আফ্রিকায়। এতটাই যে, দেশের ঘরোয়া ক্রিকেট বন্ধ করে দিতে বাধ্য হল দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড। শুধু তাই নয়, সেঞ্চুরিয়নে আগামী ২৬ ডিসেম্বর থেকে শুরু হতে চলা ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম টেস্ট হবে মাঠ ফাঁকা রেখে! এমনকী, দ্বিতীয় টেস্টেও যে মাঠে দর্শক থাকবেন, তা নিয়ে কোনও গ্যারান্টি নেই।

Advertisement

এখানে বলে রাখা ভাল, করোনার নতুন প্রজাতি ওমিক্রনের (Omicron) উত্তরোত্তর বৃদ্ধিতে একটা সময় পর্যন্ত ঘোরতর সংশয়ে পড়ে গিয়েছিল ভারতের দক্ষিণ আফ্রিকা সফর। শেষ পর্যন্ত সফর সবুজ-সংকেত পেলেও তাতে কাটছাঁট করা হয়। ঠিক হয়, টেস্ট আর ওয়ানডে সিরিজ খেলে দেশে ফিরে আসবে ভারত (Indian Cricket Team)। টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে পরে কোনও এক সময়। কিন্তু তার পরেও দক্ষিণ আফ্রিকার করোনা প্রকোপ কমেনি। বরং দিন দিন বেড়েছে। আর হালফিলে এতটাই বেড়ে গিয়েছে যে, চার দিনের ঘরোয়া ক্রিকেট সে দেশে বন্ধ করে দিতে হয়েছে।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: ঘোষিত ২০২২ অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের ভারতীয় দল, সুযোগ পেলেন বঙ্গ পেসার]

রবিবারই এক বিবৃতি পেশ করে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড জানায় যে, করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় বন্ধ করে দিতে হচ্ছে ঘরোয়া ক্রিকেট। আগামী ফেব্রুয়ারি মাসে তা হবে। যার পর প্রশ্ন উঠে যায়, ভারতের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজের তা হলে ভাগ্য কী? বিরাট কোহলিরা (Virat Kohli) তো প্র্যাকটিসে নেমে পড়েছেন। টেস্ট সিরিজ শুরু হতে আর সাত দিনও বাকি নেই। তবে বলা হচ্ছে, দক্ষিণ আফ্রিকার ঘরোয়া ক্রিকেট আর টেস্ট সিরিজের মধ্যে তফাত আছে। ঘরোয়া ক্রিকেট কোনও জৈব সুরক্ষা বলয়ে হচ্ছে না। সেখানে টেস্ট সিরিজ হবে পূর্ণ জৈব বলয়ে।

[আরও পড়ুন: বিরাট বিতর্কের মধ্যেই পদত্যাগ বিসিসিআইয়ের চিফ মেডিক্যাল অফিসারের]

কিন্তু তার পরেও ঝুঁকি নিতে পারছে না দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড (South Africa Cricket)। ইতিমধ্যেই বলা হচ্ছে যে, সেঞ্চুয়িরনে প্রথম টেস্টের কোনও টিকিট বিক্রি হবে না। মাঠ ফাঁকা রেখে খেলা হবে। আগামী কয়েক দিনে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়ে যাবে। আইন অনুযায়ী, এই মুহূর্তে মাঠে হাজার দু’য়েক দর্শক প্রবেশের অনুমতি রয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকায়। কিন্তু সেটাও খুব সম্ভবত হচ্ছে না। এমনকী আগামী ৩ জানুয়ারি থেকে ওয়ান্ডারার্সে দ্বিতীয় টেস্টেও মাঠ ফাঁকা করে খেলা হতে পারে।

Advertisement
Next