Advertisement

India vs South Africa: দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে টিম ইন্ডিয়ার প্রাপ্তি একমাত্র অনাবশ্যক বিতর্ক

07:32 PM Jan 14, 2022 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সিরিজ শুরুর আগে কমবেশি সব ক্রিকেটবোদ্ধাই টিম ইন্ডিয়ার (Team India) নামের পাশে ফেভরিট তকমাটা সাঁটিয়ে দিয়েছিলেন। আর হবে নাই বা কেন? দক্ষিণ আফ্রিকা উড়ে যাওয়ার আগে বিরাট কোহলিরা যে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের মতো দেশ থেকে টেস্ট সিরিজ জিতে ফিরেছেন(ইংল্যান্ড সিরিজ যদিও শেষ হয়নি)। ঘরের মাঠে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজেও বড় বেশি বেগ পেতে হয়নি। স্টিভ স্মিথ, কেন উইলিয়ামসন, জো রুটদের সামনে তো পিটারসেন, এলগাররা (Dean Elgar) নেহাতই ‘দুধের শিশু’। অন্তত অভিজ্ঞতার দিক থেকে, সামর্থ্যের দিক থেকে। এ হেন শিশুদের কাছেই শেষমেশ পরাস্ত হতে হল কোহলি অ্যান্ড কোম্পানিকে।

Advertisement

যে দক্ষিণ আফ্রিকা (South Africa) সফরে ইতিহাসের পাতায় নাম ওঠার কথা কোহলিদের, সেই সিরিজ ভারতীয় ক্রিকেট ইতিহাসের বইয়ে আরও একটা সাধারণ পৃষ্ঠা হয়ে থেকে গেল। শেষ ম্যাচে সেঞ্চুরি করা শ্রেয়স আইয়ার গোটা সিরিজে সুযোগ পেলেন না, রাহানে এবং পূজারার ‘পুরানে’ জুটি কেন লাগাতার ব্যর্থতা সত্ত্বেও সুযোগ পাচ্ছে, দ্বিতীয় ম্যাচে ভাল লড়াই করা বিহারীও শেষ ম্যাচে সুযোগ পেলেন না কেন, দলের সবচেয়ে অভিজ্ঞ পেসার ইশান্ত শর্মা (Ishant Sharma) গোটা সিরিজে বেঞ্চ গরম করলেন কেন? সিরিজ শেষে একগুচ্ছ প্রশ্ন ছাড়া আর একটা জিনিসই পেয়েছে ভারতীয় দল, সেটা হল বিতর্ক। বলা ভাল, গোটা প্রোটিয়া সিরিজে ভারতের প্রাপ্তি শুধু অনাবশ্যক বিতর্ক। 

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: India vs SA: অধরা সিরিজ জয়ের স্বপ্ন, কেপ টাউনে লজ্জার হার নিয়েই মাঠ ছাড়ল কোহলির ভারত]

বিতর্কের এই সিলসিলা শুরু হয়েছিল সিরিজ শুরুর আগে থেকেই। দক্ষিণ আফ্রিকা উড়ে যাওয়ার আগে সাংবাদিক বৈঠকে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে মোটামুটি গোটা ভারতীয় বোর্ডকেই নিজের শত্রু বানিয়ে ফেললেন অধিনায়ক কোহলি (Virat Kohli)। যার রেশ এখনও বর্তমান। এই বিতর্ক যে কোহলিকে খেলা চলাকালীনও তাড়া করে বেড়ায়নি, সেটা কে বলতে পারে? সেই বিতর্কের জবাব হয়তো দেশে ফিরে বিরাটকে আবার দিতে হবে।

[আরও পড়ুন: IPL 2022: টিম ইন্ডিয়া থেকে সোজা নাইট সংসারে, বুমরাহদের প্রাক্তন প্রশিক্ষককে বোলিং কোচ করল KKR]

সিরিজ চলাকালীনও বিতর্ক কম হয়নি। আফ্রিকা উড়ে যাওয়ার আগে সাংবাদিক সম্মেলনে বিস্ফোরণ ঘটানো বিরাট প্রথম দুই টেস্টের আগে বা পরে সাংবাদিকদের মুখোমুখিই হলেন না। নেটদুনিয়ায় প্রশ্ন ওঠা শুরু হল, তাহলে কি বিরাটকে সাংবাদমাধ্যমের সামনে আসতে দিচ্ছে না বোর্ড? রাহুল দ্রাবিড় (Rahul Dravid) যতই সেই বিতর্ক ‘ডিফেন্ড’ করার চেষ্টা করুন না কেন, তাতে বিশেষ সুবিধা হয়েছে বলে মনে হয় না। শেষ টেস্টের আগে আবার সাংবাদিক বৈঠকে এসে বিরাটকে বলতে হল, ‘আমার মনে হয় না, আমার আর কিছু প্রমাণ করার আছে।’ যা আগের বিতর্কে আরেকটু ধুনো দিয়েছে।

সিরিজ চলাকালীন সবচেয়ে বড় বিতর্কটি হল কেপ টাউন টেস্টের তৃতীয় দিন। একটি ডিআরএসের (DRS) সিদ্ধান্ত বিপক্ষে যাওয়ার পর যেভাবে ভারত অধিনায়ক স্ট্যাম্প মাইকে গিয়ে গালিগালাজ করলেন, সেটা আর যাই হোক ভদ্রলোকের খেলায় শোভনীয় নয়। শুধু বিরাট কেন, রাহুল, অশ্বিনরাও যেভাবে প্রতিক্রিয়া দেখালেন, সেটাও বেশ অস্বস্তিকর। এছাড়াও বার কয়েক আম্পায়ারকে চমকানো, জ্যানসেন, ভ্যান ডার ডুসেনদের স্লেজিং করা এসব তো আছেই। বহু বছর বাদে যখন ভারতীয় ক্রিকেটের ইতিহাস লেখা হবে, তখন এই সিরিজ থেকে প্রাপ্তি বলতে এই বিতর্ক বলতে আর কীই বা লেখা যাবে? ঋষভ পন্থের ওই সেঞ্চুরিটুকুই যা পাওনা।

Advertisement
Next