‘শচীনকে আঘাত করতে চেয়েছিলাম,’বিস্ফোরক স্বীকারোক্তি শোয়েব আখতারের

05:18 PM Jun 05, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শচীন তেণ্ডুলকরের সঙ্গে শোয়েব আখতারের ২২ গজের ‘শত্রুতা’ গোটা বিশ্বের জানা। এই দুই মহারথী ক্রিজে মুখোমুখি হলে ব্যাটে-বলের লড়াই দেখতে মুখিয়ে থাকতেন দর্শকরা। শচীন যেমন আপন মেজাজে শোয়েবের বাউন্সার মাঠের বাইরে পাঠানোর চেষ্টা করতেন, তেমনই শোয়েব চাইতেন ‘মাস্টার ব্লাস্টার’কে (Sachin Tendulkar) দ্রুত প্যাভিলিয়নে ফেরাতে। কিন্তু শচীনকে আউট করাই একমাত্র উদ্দেশ্য ছিল না পাক পেসারের। তাঁকে আঘাত করার ইচ্ছেই মনে মনে পালন করতেন শোয়েব। ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর পর এমনই বিস্ফোরক দাবি করলেন খোদ শোয়েব আখতার।

Advertisement

সম্প্রতি এক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নিজের ইচ্ছের কথা প্রকাশ্যে আনেন ‘রাওয়ালপিণ্ডি এক্সপ্রেস’। একটি বিশেষ ঘটনার কথা উল্লেখ করেন তিনি। জানান, ২০০৬ সালে করাচির ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে তৃতীয় টেস্টে মুখোমুখি হয়েছিল দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত ও পাকিস্তান (India vs Pakistan)। সেখানেই ‘ক্রিকেট ঈশ্বর’কে আঘাত করতে চেয়েছিলেন শোয়েব (Shoaib Akhtar)।

[আরও পড়ুন: ‘ওরা সব শিক্ষিত বেকার হয়ে গেল’, SSC দুর্নীতির মাঝে রাজ্যের মন্ত্রীর মন্তব্যে আলোড়ন]

তাঁর কথায়, “প্রথমবার সত্যিটা বলছি। ওই টেস্টে আমি ইচ্ছাকৃতভাবে শচীনকে আঘাত করতে চেয়েছিলাম। যে কোনও মূল্য ওঁকে চোটের কবলে ফেলাই আমার লক্ষ্য ছিল। ইনজামাম বারবার বলছিল উইকেটের সামনে বল ফেলতে। কিন্তু আমি চাইছিলাম শচীন চোট পাক। সে জন্যই ওর হেলমেট তাক করে বল করেছিলাম। আর তাতেই মনে হয়েছিল, শচীন আর ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন না। কিন্তু ভিডিওতে দেখলাম, ও নিজের মাথাটা ঠিক বাঁচিয়ে নিয়েছিল।”

Advertising
Advertising

সেখানেই থেমে যাননি শোয়েব। আবারও শচীনকে আঘাত করার চেষ্টা করেন তিনি। কিন্তু সেদিন মহম্মদ আসিফের ডেলিভারিতেই ধস নেমেছিল ভারতীয় দলের ব্যাটিং লাইন আপে। তাতেই ৩৪১ রানে পরাস্ত হয়েছিল টিম ইন্ডিয়া। তবে ক্রিকেটভক্তদের কাছে সেই টেস্টটি স্মরণীয় ইরফান পাঠানের বল হাতে হ্যাটট্রিকের জন্যও। কিন্তু শোয়েব যে মাস্টার ব্লাস্টারকে এভাবে আঘাত করতে চেয়েছিলেন, তা সত্যিই অবাক করার মতো স্বীকারোক্তি। এবার দেখার এ নিয়ে শচীন কোনও প্রতিক্রিয়া দেন কি না।

[আরও পড়ুন: কাশ্মীরি পণ্ডিত শিক্ষকদের পুনর্বাসনের তালিকা ফাঁস, তোপের মুখে কেন্দ্রীয় সরকার]

Advertisement
Next