বিশ্বকাপের পর অবসর নয়, পর্তুগালের জার্সিতে ২০২৪ ইউরো খেলতে চান রোনাল্ডো

10:26 AM Sep 22, 2022 |
Advertisement

স্টাফ রিপোর্টার: বয়স ৩৭। যে বয়সে আর পাঁচজন ফুটবলার অবসর নিয়ে নিশ্চিন্তে জীবন উপভোগ করার পরিকল্পনা করেন, সেই বয়সে এসে তিনি দেশের জার্সি গায়ে দু’বছর বাদের ইউরো কাপ খেলার পরিকল্পনা করছেন। তিনি ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো (Cristiano Ronaldo)। কাতার বিশ্বকাপের পর যাকে আর দেশের জার্সি গায়ে দেখা যাবে না ভেবে ফুটবল বিশ্ব ইতিমধ্যেই হা হুতাশ শুরু করে দিয়েছে। সেই রোনাল্ডো জানিয়ে দিলেন, বিশ্বকাপেই (Quatar World Cup) থেমে যেতে রাজি নন তিনি।

Advertisement

ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো জানিয়ে দিলেন, তিনি এখনও ফুরিয়ে যাওয়ার তালিকায় ঢোকেননি। একইসঙ্গে বললেন, ২০২৪ ইউরো কাপেও তাঁকে খেলতে দেখা যাবে। পর্তুগাল ফুটবল ফেডারেশনের এক অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন রোনাল্ডো। সেখানে দাঁড়িয়ে পর্তুগাল (Portugal) দলের অধিনায়ক বলেন, “আমার লক্ষ্য কিন্তু উঁচুতে। এখনও আমি অনুপ্রাণিত বোধ করি। এই দলে প্রচুর তরুণ খেলোয়াড় আছে। তাদের সঙ্গে থাকতে পারাটাও আমার কাছে অনেক বড় ব্যাপার। তাই বলে যাচ্ছি, এই বিশ্বকাপ তো বটেই, আগামী ইউরো কাপেও (Euro Cup) আমাকে খেলতে দেখবেন। সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে এগোতে চাই।”

[আরও পড়ুন: এবার আইএসএলে বাড়ছে ম্যাচের সংখ্যা, তুঙ্গে সমর্থকদের উত্তেজনাও]

বস্তুত ক্লাবের জার্সিতে তাঁর পারফরম্যান্স গ্রাফ গত দু’বছরে খানিকটা নেমে গেলেও জাতীয় দলের জার্সি গায়ে এখনও আগের মতোই ম্যাজিক দেখিয়ে চলেছেন তিনি। মূলত রোনাল্ডোর ক্যারিশমাতেই বিশ্বকাপের মূল পর্বে এসেছে পর্তুগাল। এই মুহূর্তে নিজের জাতীয় দলের তো বটেই গোটা বিশ্বের সক্রিয় গোলস্কোরারদের মদ্যে রোনাল্ডো এক নম্বরে। দেশের হয়ে ১৮৯ ম্যাচে তাঁর গোলসংখ্যা ১১৭টি। আপাতত তিনি নিজের ক্লাব ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের (Man U) হয়ে খেলতে ব্যস্ত। তবে তাঁর নজর রয়েছে কাতার বিশ্বকাপের দিকে। যা কিনা শুরু হবে নভেম্বরে।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: ‘বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারের ওজন অনেক বেশি’, রোহিতদের সমালোচনায় প্রাক্তন পাক ক্রিকেটার]

কাতার বিশ্বকাপই রোনাল্ডো এবং মেসির (Leo Messi) শেষ বিশ্বকাপ হতে চলেছে। তবে রোনাল্ডো প্রত্যয়ী দেশের জার্সিতে পরবর্তী ইউরোও খেলতে পারবেন তিনি। যদিও সেসময় ৪০ ছুঁইছুঁই ভদ্রলোক কতটা ফিট থাকতে পারবেন, তা নিয়ে সংশয় থাকছেই। কিন্তু নামটা যখন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো, তখন তো সবই সম্ভব।

Advertisement
Next