তাইওয়ানের উপর একগুচ্ছ নিষেধাজ্ঞা চাপাল চিন, তলব মার্কিন রাষ্ট্রদূতকেও

03:00 PM Aug 03, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আমেরিকার স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির (Nancy Pelosi) তাইওয়ান সফরের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে কড়া ব্যবস্থা নিল চিন। সেদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে তলব করে পেলোসির সফর সম্পর্কে জবাবদিহি চাওয়া হয়েছে। বুধবার বেজিংয়ের তরফে জানানো হয়েছে, তাইওয়ান থেকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ জিনিস আমদানি করার উপরে নিষেধাজ্ঞা চাপানো হল। সেই সঙ্গে তাইওয়ানে বালি রপ্তানি স্থগিত করে দিয়েছে চিন।

Advertisement

চিনের ডেপুটি বিদেশ মন্ত্রী জি ফেং মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে (US Envoy) জরুরি তলব করেন। পেলোসির সফরের তীব্র প্রতিবাদ করেন ফেং। সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, সেই বৈঠকে আবারও সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে চিনের তরফে। প্রয়োজন পড়লে সামরিক আক্রমণ করে তাইওয়ান (Taiwan) দখল করবে চিন, এমনটা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে তাইওয়ানের আকাশসীমায় ঢুকে পড়েছে চিনা ফাইটার জেট। তাইওয়ান স্ট্রেট সংলগ্ন এলাকায় মিসাইল উৎক্ষেপণ করেছে বেজিং, এমনটাও জানা গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনে হ্যাকার হানা! পালটে যেতে পারে আস্ত ব্যালট!]

বুধবার চিনের বাণিজ্যমন্ত্রকের তরফে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। সেখানে জানানো হয়েছে, আপাতত তাইওয়ান থেকে মাছ এবং ফল আমদানি করা বন্ধ করা হল। কারণ হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে, খাদ্যদ্রব্যে অতিরিক্ত পরিমাণে কীটনাশক পাওয়া গিয়েছে। তাছাড়াও খাদ্যদ্রব্য প্রক্রিয়া করার সময়ে কোভিড পজিটিভিটির নমুনা পাওয়া গিয়েছে। অন্য আরেকটি বিবৃতি জারি করে জানানো হয়েছে, চিন থেকে তাইওয়ানে বালি রপ্তানি বন্ধ করে দেওয়া হল। কিন্তু এহেন সিদ্ধান্ত কেন নেওয়া হয়েছে, তা নিয়ে মন্তব্য করেনি চিন। প্রসঙ্গত, পেলোসির সফরের কথা প্রকাশ হওয়ার পরেই সোমবার থেকে তাইওয়ানিজ বিস্কুট এবং পেস্ট্রি আমদানি করার উপরে নিষেধাজ্ঞা চাপিয়েছিল বেজিং।

Advertising
Advertising

২৫ বছরেরও বেশি সময় পর ন‌্যান্সিই প্রথম শীর্ষ স্তরের কোনও মার্কিন আধিকারিক, যিনি তাইওয়ানে পা রাখলেন। ন‌্যান্সির তাইওয়ানে পা রাখার আগেই মঙ্গলবার ফের আমেরিকাকে হুমকি দিয়েছিল চিন (China)। সেদেশের বিদেশমন্ত্রীর মুখপাত্র জানিয়েছিলেন, “মার্কিন স্পিকার তাইওয়ানের মাটিতে পা দিলে আমেরিকাকে তার মূল্য চোকাতে হবে। চিনের সার্বভৌমত্ব ও নিরাপত্তায় হাত পড়লে তার দায় নিতে হবে আমেরিকাকেই।” সব মিলিয়ে উত্তপ্ত পরিস্থিতি চিন-তাইওয়ান এলাকায়। যুদ্ধের সম্ভাবনা মাথায় রেখে তৈরি হচ্ছে দু’পক্ষই। পেলোসির সফর শেষ হওয়ার পরেই জানা যায়, বৃহস্পতিবার থেকেই তাইওয়ানের জলসীমায় মহড়া দেবে নৌসেনা। 

[আরও পড়ুন: ভারতের উপরে নজরদারি চালাতেই শ্রীলঙ্কায় চিনা জাহাজ! বাড়ছে নয়াদিল্লির উদ্বেগ]

Advertisement
Next