‘স্বাধীন দেশ এমনই হওয়া উচিত’, ভারতের বিদেশমন্ত্রীর ভিডিও চালিয়ে বোঝালেন ইমরান খান

05:59 PM Aug 14, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাকিস্তানের (Pakistan) মাটিতে ফের ভারতের স্তুতি। রাজনৈতিক মিছিলে চলল ভারতীয় বিদেশমন্ত্রীর ভিডিও। কয়েক হাজার সমর্থকের সামনে দাঁড়িয়ে ভারতীয় বিদেশনীতির প্রশংসায় পঞ্চমুখ হলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ব্যাপারটা কী?

Advertisement

লাহোরে বিশাল জনসমাবেশ ছিল ইমরান খানের। সেখানেই চলল ভারতের বিদেশমন্ত্রী জয়শঙ্করের ভিডিও। যেখানে আমেরিকার হুঁশিয়ারি উড়িয়ে রাশিয়া থেকে তেল কেনার বিষয়ে অনড় সিদ্ধান্তের কথা জানাচ্ছেন বিদেশমন্ত্রী। এ প্রসঙ্গে ইমরান বলেন, “ভারত-পাকিস্তান একইসময়ে স্বাধীনতা পেয়েছে। যদি নয়াদিল্লি নিজের সিদ্ধান্তে অনড় থাকতে পারে, দেশের মানুষের প্রয়োজন মতো সিদ্ধান্ত নিতে পারে, তাহলে আমাদের নেতারা কেন মাথা নত করছে?” এরপরই ইমরান খান জয়শঙ্করের ভিডিওটি চালিয়ে দেন।

[আরও পড়ুন: ‘ভয় না পেলে তৈরি হবে অখণ্ড ভারত’, স্বাধীনতা দিবসের আগে ইঙ্গিতপূর্ণ বার্তা RSS প্রধানের]

ইমরান আরও বলেন, “জয়শঙ্কর ওদের বলছেন, আপনারা কে? ইউরোপের দেশগুলো তো রাশিয়ার কাছ থেকে গ্যাস কিনছে। দেশের মানুষের চাহিদা মেটাতে তেল কিনেছে ওরা। এটাই তো একটা স্বাধীন দেশের পরিচয়।” একইসঙ্গে বিদেশি শক্তির কাছে মাথা নত করা নিয়ে পাক প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফকে একহাত নিয়েছেন ইমরান। তাঁর কথায়, দেশে জ্বালানির দাম আকাশছোঁয়া। আমরা অল্প দামে জ্বালানি কিনতে চেয়ে রাশিয়ার সঙ্গে কথাও বলেছিলাম। কিন্তু আমেরিকার মুখের উপর না বলার সাহস দেশের নেতাদের নেই। অথচ আমেরিকার কূটনৈতিক সঙ্গী হয়েও স্বাধীন সিদ্ধান্ত নিচ্ছে ভারত। আমাদের দেশের জন্যও এমন নেতৃত্ব দরকার।”

Advertising
Advertising

এর আগেও ইমরান (Imran Khan) বলেছেন, “আমাদের দেশে বিশাল জনসংখ্যা। সেই কারণেই বিশ্বের সব দেশের সঙ্গেই আমাদের সুসম্পর্ক রাখা উচিত। আমাদের নাগরিকদের উন্নতির স্বার্থে যেসব দেশ সাহায্য করবে, তাদের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখা দরকার। যেভাবে ভারত নিজের বিদেশনীতি (Foreign Policy) নিয়ন্ত্রণ করছে, পাকিস্তানেরও সেরকম পদক্ষেপ করা দরকার।” প্রসঙ্গত, আন্তর্জাতিক মঞ্চে ভারত বারবার নিরপেক্ষ অবস্থান বজায় রেখেছে। রাশিয়া থেকে তেল আমদানি প্রসঙ্গে ভারত জানিয়েছে, দেশের স্বার্থকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। ভারতের পক্ষে যা লাভজনক, সেই ভাবেই বিদেশনীতি প্রণয়ন করা হবে।

[আরও পড়ুন: রাজৌরি সেনাঘাঁটিতে হামলার দায় স্বীকার পাক জঙ্গিগোষ্ঠীর, জি-২০ বৈঠক বানচালের হুমকি]

Advertisement
Next